Wednesday, July 24, 2024
দেশ

১২ লাখ মাটির প্রদীপ জ্বেলে গিনিস বুকে রেকর্ড করল অযোধ্যার দীপোৎসব

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় বুধবার দীপাবলি উপলক্ষে ১২ লাখ মাটির প্রদীপ জ্বালানো হয়। শুধুমাত্র সরযূ নদীর (Saryu River) তীরেই ৯ লাখ মাটির প্রদীপ জ্বালানো হয়। এছাড়া ৩ লাখ মাটির প্রদীপ অযোধ্যার বিভিন্ন স্থানে জ্বালানো হয়। সবচেয়ে বেশী প্রদীপ একসঙ্গে জ্বালানোর জন্য গিনিস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে (Guinness world record) জায়গা করে নিল অযোধ্যার এই দীপোৎসব।

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath) টুইটারে মাটির প্রদীপের বৃহত্তম প্রদর্শনের জন্য গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের শংসাপত্র পোস্ট করেছেন। মুখ্যমন্ত্রী টুইটে লিখেছেন, ‘পবিত্র নগরী অযোধ্যার সরযূ নদীর তীর আলোর মালায় সেজে উঠেছে। সত্য, স্নেহ এবং বিশ্বকল্যাণের চেতনায়, বৈদিক মন্ত্রের মধ্যে সর্বাধিক সংখ্যক প্রদীপ জ্বালানোর বিশ্ব রেকর্ড গড়েছে। এটা ভগবান শ্রী রামের ভক্তদের বিশ্বাসের ফল।’

আদিত্যনাথ বলেন, অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরি হলে এটি হবে বিশ্বের সেরা ধর্মীয় ও আধ্যাত্মিক শহর। অযোধ্যা ভারতের সাংস্কৃতিক রাজধানী হবে। ২০২৩ সালের মধ্যে অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ ভক্তদের জন্য খুলে দেওয়া হবে।

সমাজবাদী পার্টিকে নিশানা করে আদিত্যনাথ বলেন, ‘যারা ৩১ বছর আগে রামভক্তদের উপর গুলি চালাচ্ছিল, তারা এখন আপনাদের ক্ষমতার কাছে মাথা নত করেছে। ভগবান রাম ও ভগবান শ্রীকৃষ্ণের ভক্তদের উপর ফুল বর্ষণ করা হবে।’ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘৩১ বছর আগে, ১৯৯০ সালের ৩০ অক্টোবর এবং ২ নভেম্বর যা ঘটেছিল তা কেউ ভুলতে পারবে না।’

যোগী আদিত্যনাথ বলেন, সরকার রাজ্যের রাম জন্মভূমি, কাশী বিশ্বনাথ সহ ৫০০টি তীর্থস্থান ও মন্দিরের উন্নয়নের জন্য কাজ করছে, যার মধ্যে ৩০০টির কাজ শেষ হয়েছে এবং আরও ২০০ টির কাজ চলছে।

কেন্দ্রীয় পর্যটন ও সংস্কৃতি মন্ত্রী কিষান রেড্ডি বলেন, অযোধ্যায় ১২ লক্ষ দিয়া প্রজ্বলিত করা শুধুমাত্র একটি রেকর্ড নয়, এটি সমগ্র বিশ্বের কাছে ভগবান রামের মর্যাদার বার্তা। ২০৩০ সালের মধ্যে অযোধ্যা হবে বিশ্বের বৃহত্তম ধর্মীয় পর্যটন শহর।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রেড্ডি ছাড়াও অযোধ্যায় উপমুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্য, বিজেপি রাজ্য সভাপতি স্বতন্ত্র দেব সিং এবং আরও বেশ কয়েকজন মন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন। ত্রিনিদাদ ও টোবাগো, ভিয়েতনাম এবং কেনিয়ার রাষ্ট্রদূতরাও অনুষ্ঠানে অংশ নেন।