Monday, May 27, 2024
রাজ্য​

বাংলায় হিন্দুদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক করে রেখেছে তৃণমূল সরকার: মোদী

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: লোকসভা ভোটের প্রচারে ফের তৃণমূলকে বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বর্ধমান থেকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি টিভিতে দেখলাম, বাংলায় তৃণমূলের এক বিধায়ক প্রকাশ্যে হুমকি দিচ্ছে। তিনি বলছিলেন, হিন্দুদের ২ ঘণ্টায় ভাগীরথিতে ভাসিয়ে দেব। এটা কী ধরণের ভাষা? কী ধরণের রাজনৈতিক সংস্কৃতি? হিন্দুদের ভাসিয়ে দেবে? সত্যি বাংলার কী হাল হয়েছে! বাংলায় হিন্দুদের সঙ্গে কী হচ্ছে? মনে হচ্ছে বাংলায় হিন্দুদের তৃণমূলের সরকার দ্বিতীয় স্তরের নাগরিক করে রেখেছে।’

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ভরতপুরের তৃণমূল বিধায়ক হুমায়ুন কবিরকে বলতে শোনা যায়, ‘২ ঘণ্টার মধ্যে যদি তোমাদের ভাগীরথিতে না ফেলতে পারি রাজনীতি থেকে সরে যাব। শক্তিপুর এলাকায় বসবাস করা বন্ধ করে দেব। তোমরা হাতির পাঁচ পা দেখেছো? কিন্তু যদি ভেবে থাকো, ৩০ শতাংশ লোক মুর্শিদাবাদ জেলায় আমরা ৭০ শতাংশ। এখানে রামনগরে তোমরা বেশি আছো বলে কাজিপাড়ার মসজিদ ভাঙবে? আর বাকি এলাকায় মুসলিম ভাইয়েরা হাত গুটিয়ে বসে থাকবে এটা কোনও দিন হবে না, বিজেপিকে আমি বলছি।’ তৃণমূল বিধায়কের বক্তব্যের সেই ভিডিও ভাইরাল হয়।

সন্দেশখালি প্রসঙ্গ মোদী বলেন, ‘এদের জয় শ্রী রাম বললে সমস্যা। জয় শ্রী রাম বললে ওদের জ্বর আসে। এদের রাম মন্দির তৈরিতে সমস্যা। এদের রাম নবমীর শোভাযাত্রায় সমস্যা। আমি আজ তৃণমূল সরকারকে প্রশ্ন করতে চাই এখানে সন্দেশখালিতে আমাদের দলিত বোনেদের সাথে এত বড় অপরাধ হল গোটা দেশ পদক্ষেপের দাবি তুলেছিল। কিন্তু তৃণমূল অপরাধীকে বাঁচাতে ব্যস্ত ছিল। তা কি শুধু এইজন্য যে অপরাধীর নাম ছিল শাহজাহান শেখ?’