সুপ্রিম কোর্টে হিজাব মামলার দ্রুত শুনানির আর্জি খারিজ

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব নিষিদ্ধ করা ইস্যুতে উত্তাল গোটা দেশ। কর্ণাটক হাইকোর্ট অন্তবর্তীকালীন রায়ে জানিয়েছে, শুনানি চলাকালীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ধর্মীয় পোশাক পরে যাওয়া যাবেনা। এরমধ্যে সুপ্রিমকোর্টে হিজাব মামলার শুনানির আর্জি জানানো হয়। কিন্তু সেই আর্জি খারিজ করে দিল শীর্ষ আদালত। শুক্রবার দেশের সর্বোচ্চ আদালত বলেছে, ‘ আমরা জানি কর্নাটকে কি হচ্ছে, আমরা উপযুক্ত সময়ে বিষয়টি শুনবো।’

কর্ণাটক হাইকোর্টের অন্তবর্তীকালীন নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেছিলেন এক পড়ুয়া। দ্রুত শুনানির আর্জি জানিয়েছিলেন ওই পড়ুয়া। কিন্তু শুক্রবার সেই আর্জি খারিজ করে দিল আদালত। আইনজীবী দেবদূত কামাত বলেন, ‘কর্ণাটক হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছে স্কুল-কলেজে ধর্মীয় পরিচয় দেখানো উচিত নয়। শুধু মুসলিম নয়, সকল ধর্মের ক্ষেত্রে এটার দীর্ঘকালীন প্রভাব রয়েছে। উদাহরণ হিসাবে বলা যেতে পারে, শিখরা পাগড়ি পরেন।’

বৃহস্পতিবার মামলার শুনানিতে কর্ণাটক হাইকোর্ট জানায়, দ্রুত হিজাব বিতর্কের সমাধান করতে চায় আদালত। সেই সময় পর্যন্ত শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখতে হবে।

কর্ণাটক হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘বিষয়টি সমাধান না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোন ধর্মীয় পোশাক পরে যাওয়া যাবে না। আমরা রায় দেব। স্কুল-কলেজ দ্রুত চালু করুন। বিষয়টি সমাধান না হওয়া পর্যন্ত পড়ুয়াদের ধর্মীয় পোশাক পরার জেদ ধরে থাকা উচিত নয়।’

এই পরিস্থিতিতে শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এন ভি রামান্না বলেন, ‘আমরা কিছু বলতে চাই না। এটাকে বৃহৎ ক্ষেত্রে নিয়ে যাবেন না। ইতিমধ্যে আদালত মামলাটি শুনেছে। আপনাকেও এটা ভাবতে হবে বিষয়টি দিল্লিতে আনা ঠিক হবে কিনা। নিশ্চয়ই আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখব। বিষয়টি উপযুক্ত সময় আমরা শুনব।’