Tuesday, May 21, 2024
দেশ

মুসলিমরা ‘অনুপ্রবেশকারী’, ‘বহু সন্তানের জন্মদাতা’, বিতর্কিত মন্তব্য মোদীর

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: রবিবার (২১ এপ্রিল) রাজস্থানের বাঁশবাড়া কেন্দ্রে বিজেপির এক নির্বাচনী জনসভা থেকে বিতর্কিত মন্তব্য করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন, ‘২০০৬ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং বলেছিলেন, দেশের সম্পদের উপর মুসলিমদের অধিকার সকলের আগে। অর্থাৎ দেশের সম্পদ বন্টন করা হবে তাদের মধ্যে, যাদের পরিবারে বেশি সন্তান রয়েছে। অনুপ্রবেশকারীদের হাতে তুলে দেওয়া হবে দেশের সম্পদ। কংগ্রেসের ইস্তেহারে বলা হয়েছে, মা-বোনদের সোনার গয়নার হিসেব করে সেই সম্পদ বিতরণ করা হবে। মনমোহন সিংয়ের সরকার তো বলেই দিয়েছে, দেশের সম্পদে অধিকার মুসলিমদেরই। আপনাদের মঙ্গলসূত্রটাও বাদ দেবে না।’


মোদীর এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বিরোধীরা। মোদীর এহেন মন্তব্য নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছে কি না নির্বাচন কমিশনকে (ইসিআই) তা তদন্ত করে দেখার আহ্বান জানিয়েছেন তারা। 

মোদীর এই মন্তব্য প্রসঙ্গে রাহুল গান্ধী বলেছেন, ‘এটা হতাশার লক্ষণ। প্রথম দফার ভোট বিরুদ্ধে গেছে বুঝতে পেরে প্রধানমন্ত্রী এখন মিথ্যার আশ্রয় নিচ্ছেন। মিথ্যা ভাষণে তিনি এতটাই নিচে নেমেছেন যে এখন মানুষের নজর ঘোরাতে চাইছেন। প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে মনমোহন সিং বারবার মুসলিম সমাজের ক্ষমতায়নের কথা বলে এসেছেন। মোদী তা বিকৃত করছেন।’

সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব বলেছেন, ‘মোদী মিথ্যা বলেন, এটা শুধু দেশবাসীই নয়, গোটা পৃথিবী জানে। যেভাবে তিনি কংগ্রেসের ন্যায়পত্র ও মনমোহন সিংয়ের নামে মিথ্যা অপবাদ দিলেন, তা নোংরা রাজনীতির উদাহরণ।’

এ প্রসঙ্গে অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিনের (এআইএমআইএম) নেতা ওয়াইসি টুইটে লিখেছেন, ‘মোদী মুসলিমদের অনুপ্রবেশকারী বলেছেন। মুসলিমদের ‘বহু সন্তানের জন্মদাতা’ বললেন। ২০০২ সালে থেকে এটাই তিনি করে আসছেন। মুসলিমদের গা-লি দিচ্ছেন। এটাই বিজেপির জয়ের একমাত্র গ্যারান্টি।’

উল্লেখ্য, ভারতে মুসলিম জনসংখ্যা প্রায় ২৩ কোটি। কিছু হিন্দু জাতীয়তাবাদী নেতা মুসলিমদেরকে ‘বহিরাগত’ বা ‘অনুপ্রবেশকারী’ বলে দাবি করে থাকেন। পাশাপাশি, মুসলিমরা ইচ্ছাকৃতভাবে বেশি বেশি সন্তান জন্ম দিয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা কায়েম করতে চায় বলেও অভিযোগ। এ জন্য গেরুয়া শিবির প্রায়শই ‘দুই সন্তান নীতি’ চালুর দাবি জানিয়ে আসছে। এছাড়া বিজেপি বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশ থেকে ভারতে অবৈধভাবে বসবাস করা মুসলিমদের অনুপ্রবেশকারী হিসেবে উল্লেখ করেছে।