Monday, May 20, 2024
দেশ

ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণ দিয়ে কংগ্রেস আম্বেদকর, সংবিধানের পিঠে ছুরি মেরেছে: মোদী

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: শুক্রবার লোকসভা ভোটের দ্বিতীয় দফার ভোটগ্রহণ চলছে। প্রতিদিনই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিরোধীদের নয়া নয়া বিষয়ে আক্রমণ করে চলেছে। এবার ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণ নিয়ে কংগ্রেসকে আক্রমণ করলেন মোদী।

মধ্যপ্রদেশের সাগর জেলায় নির্বাচনী প্রচারে মোদী বলেন, ‘ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণ দিয়ে কংগ্রেস ডঃ ভীমরাও আম্বেদকরের পিঠে ছুরি মেরেছে। কংগ্রেস ওবিসিদের সবচেয়ে বড় শত্রু।’

মোদী বলেন, ‘কংগ্রেসের দ্বিচারিতা গোটা দেশবাসী দেখেছে। আমাদের সংবিধান স্পষ্টভাবে বলেছে যে ধর্মের ভিত্তিতে কাউকে সংরক্ষণ করা হবে না। বাবাসাহেব আম্বেদকরও এই সংরক্ষণের বিরুদ্ধে ছিলেন। কিন্তু কংগ্রেস ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণের মতো ভয়ানক ব্যবস্থা চালু করেছে। দেশবাসীর চোখে ধুলো দিয়ে ভয়ঙ্কর খেলায় মেতে উঠেছে কংগ্রেস।’

মোদী বলেন, ‘২০০৪ সালে অন্ধ্রপ্রদেশে ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণ চালু করেছিল কংগ্রেস। এটা করে বাবাসাহেব আম্বেদকর, সংবিধানের পিঠে ছুরি মেরেছে কংগ্রেস।’ 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৯ এবং ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে ইস্তেহারেও কংগ্রেস ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কংগ্রেসের পরিকল্পনা ছিল এসসি, এসটি, ওবিসির কোটা ১৫ শতাংশ কেটে ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণ চালু করা।’

উল্লেখ্য, কর্ণাটকে কংগ্রেস সরকার ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণ চালু করেছিল। কিন্তু বিজেপি সরকার আসার পর ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণ তুলে দিয়েছিল। পরে কর্ণাটকে ফের কংগ্রেস ক্ষমতায় আসার পর ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণ পুনরায় চালু করেছে।

মোদীর অভিযোগ, ‘কংগ্রেস চালাকি করে ওবিসিদের চোখে ধুলো দিয়েছে মুসলিমদের ওবিসি কোটায় সংরক্ষণ দিয়েছে। এটা করে সত্যিকারের ওবিসিদের অধিকার কেড়ে নিয়েছে কংগ্রেস। কংগ্রেস সারাদেশে নাকি এই ফর্মুলা লাগু করতে চাইছে।’

মোদী বলেন, ‘ভোট আসবে, যাবে। কিন্তু এই ধরনের ভয়ঙ্কর খেলা পরবর্তী প্রজন্মকে ধ্বংস করে দেবে।’