Tuesday, May 21, 2024
জীবনযাপন

দীপাবলির একদিন আগে চৌদ্দ প্রদীপ জ্বালানোর কারণ

বাংলা পঞ্জিকা মতে আশ্বিন মাসের চতুর্দশী তিথিতে কালীপূজা বা দীপাবলির একদিন আগে চৌদ্দ প্রদীপ জ্বালিয়ে চৌদ্দ পুরুষের অতৃপ্ত আত্মাকে তুষ্ট করে অশুভ শক্তিকে দূর করার প্রথা পালন করা হয় বলে এই দিনটাকে ভূত চতুর্দশীও বলে। মঙ্গল কামনায় কালী পুজোর আগের দিন বাঙালি গৃহস্থবাড়িতে ১৪ প্রদীপ জ্বালানো হয় ভূত চতু্র্দশী সন্ধ্যায়। কথিত আছে, অশুভ শক্তিকে বিনাশ করতে এবং অতৃপ্ত আত্মাদের তুষ্ট করতে এই দিন সন্ধ্যায় ১৪ টি প্রদীপ জ্বালানো হয়।

বিশ্বাস অনুযায়ী, এই দিন এই নির্দিষ্ট সংখ্যক প্রদীপ জ্বালালে অশুভ শক্তি দূর হয়। প্রথা অনুসারে ১৪টি প্রদীপকে বাড়ির সবক’টি দরজার পাশে বসাতে হয়। মনে করা হয়, এই প্রদীপ জ্বলতে থাকলে অশুভ আত্মারা দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না। দেশাচার মতে, আমাদের বংশ নির্ধারতি হয় পিতৃকুলের সাত ও মাতৃকুলের সাত পুরুষের পরিচয় দিয়ে। দীপান্বিতা কালীপুজোর আগের দিন প্রেতপুরুষরা নেমে আসেন বলে বিশ্বাস রয়েছে, এ কথা আগেও উল্লিখিত। প্রেতপুরুষ বলতে বংশের বিগত আত্মাদের কথাই যদি ধরতে হয়, তা হলে পিতৃকুলের ৭ আর মাতৃকুলের ৭- মোট ১৪ পুরুষের কথাই ধরতে হবে।

এছাড়া, এক সঙ্গে অনেকগুলি প্রদীপ জ্বালিয়ে ক্ষতিকারক কীটের হাত থেকে হৈমন্তিক ফসল রক্ষা করার তাগিদে কৃষিজীবী বঙ্গবাসীকে এই উপাচার পালন করতে হত। তার আগে এদিন দুপুরে ভাতের সঙ্গে খেতে হয় ১৪ রকম শাক ভাজা।