Thursday, June 13, 2024
দেশ

‘দুই সন্তান নীতি’ কার্যকর করতে চলেছে যোগী সরকার

লখনউ: ৩৭০ ধারা বাতিলের পর দেশের লাগামহীন জনসংখ্যা বৃদ্ধিতে এবার টাশ টানতে দুই সন্তান নীতি প্রয়োগের কথা ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার, এমনটাই শোনা গিয়েছিল। কিন্তু কেন্দ্রের আগে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ বিল পাশ করতে চলেছেন যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য উত্তরপ্রদেশ। ২০২২ সালেই বিধানসভা নির্বাচন উত্তরপ্রদেশে। তার আগেই জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ বিল পাশ করতে চলেছে যোগী সরকার। এমনটাই ঘোষণা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath)।

বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসে যোগী আদিত্যনাথ আগামী দশ বছরের জন্য রাজ্যের জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে নয়া নীতি প্রকাশ করলেন। পাশাপাশি, সাফ জানিয়ে দিলেন, রাজ্যে প্রজননের হার ২০২৬ সালের মধ্যে ২.১ শতাংশ এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ১.৯ শতাংশ করা।

জানা গিয়েছে, শীঘ্রই উত্তরপ্রদেশ বিধানসভায় পেশ করা হবে উত্তরপ্রদেশ জনসংখ্যা (নিয়ন্ত্রণ, স্থিতিকরণ এবং উন্নয়ন) বিল, ২০২১। যদিও যোগী সরকারের এই নীতির তীব্র সমালোচনা করেছে বিরোধীরা। নয়া বিলে যোগী সরকারের প্রস্তাব, দুইয়ের বেশি সন্তান হলে সরকারি প্রকল্পের সুবিধা বাতিল করা হবে। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি সরকারি চাকরিতে আবেদন করতে পারবেন না। এমনকি, স্থানীয় নির্বাচনেও অংশ নিতে পারবেন না দুইয়ের বেশি সন্তান থাকলে।

নয়া বিলে আরও বলা হয়েছে, সরকারি কর্মীরা দু’টি সন্তানের পরে বন্ধ্যাকরণ অস্ত্রোপচার করিয়ে নিলে কর্মজীবনে বাড়তি দু’বার বেতন বৃদ্ধির সুবিধা পাবেন। জমি-বাড়ি কিনতে মিলবে সরকারি ভর্তুকি ও অল্প সুদে ঋণ। জল, বিদ্যুৎ বা বাড়ির কর দেওয়ার ক্ষেত্রে রিবেট পাওয়া যাবে। মিলবে বাড়তি ৩ শতাংশ ইপিএফের সুবিধা। জীবনসঙ্গীর জন্য থাকবে নিখরচায় স্বাস্থ্য পরিষেবা ও বিমা। অতিরিক্ত ৪ বার বেতন বৃদ্ধি হবে।

একমাত্র সন্তানের ২০ বছর বয়স না-হওয়া পর্যন্ত তাকে নিখরচায় স্বাস্থ্য পরিষেবা ও বিমার সুবিধা দেওয়া হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার। পাশাপাশি, স্নাতক অবধি নিখরচায় পড়ার সুযোগ। একমাত্র কন্যাসন্তান হলে উচ্চশিক্ষায় মিলবে বৃত্তি। সরকারি চাকরি করেন না, এমন সাধারণ নাগরিকেরাও দুই বা এক সন্তান নীতি মেনে চললে কার্যত একই সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।