Wednesday, May 29, 2024
দেশ

শান্তির বার্তা হিসাবে নয়, আন্তর্জাতিক চাপে অভিনন্দনকে ছাড়তে বাধ্য হয়েছে পাকিস্তান

নয়াদিল্লি: উৎকণ্ঠা, উদ্বেগের অবসান ঘটিয়ে অবশেষে দেশে ফিরছেন পাক হেফাজতে থাকা ভারতীয় বায়ুসেনার উয়ং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। পাকিস্তানের ইসলামাবাদ থেকে লাহৌর হয়ে ভারতে ফিরলেন অভিনন্দন। সড়কপথে ওয়াঘা সীমান্তে দিয়েই দেশের মাটিতে পা রাখেন তিনি।

তবে শান্তির বার্তা নয় আন্তর্জাতিক চাপের মুখে বাধ্য হয়ে আটক পাইলটকে ছাড়তে বাধ্য হলো পাকিস্তান। যদিও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বৃহস্পতিবার জানিয়েছিলেন, তার দেশ শান্তি চায় আর সেজন্য আটককৃত পাইলটকে মুক্তি দিচ্ছে। তবে অভিনন্দনকে যাতে ছেড়ে দেওয়া হয় সে জন্য ইসলামাবাদের উপর চাপ তৈরি করেছিল আমেরিকা এবং সৌদি আরব।

ভারতের লক্ষ্য ছিল আন্তর্জাতিক স্তরে পাকিস্তানকে চাপে ফেলা। নয়াদিল্লি সেই কাজটাই করেছে। তারই ফলশ্রুতিতে পাকিস্তানের ওপর চাপ দিয়েছে আমেরিকা এবং সৌদি আরব।

১৯৪৯-এর জেনেভা চুক্তিতে পরিষ্কার বলা আছে, দুটি দেশের মধ্যে এ রকম সংঘর্ষের পরিস্থিতিতে কোনও পক্ষের সদস্য যদি অন্য পক্ষের এলাকায় সেখানকার বাহিনীর হাতে ধরা পড়ে, তবে তাকে যুদ্ধবন্দির মর্যাদা দিতে হবে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের যুদ্ধবন্দীদের অধিকার নির্ণয় এবং যুদ্ধক্ষেত্র ও সংলগ্ন এলাকার অসুস্থ ও অসামরিক ব্যক্তিদের সুরক্ষাও দেয় এই চুক্তি। বিশ্বের ১৯৬টি দেশ এই চুক্তি মেনে চলার বিষয়ে স্বাক্ষর করেছে।