Thursday, April 25, 2024
দেশ

বিয়ের পর স্বামীর ধর্ম গ্রহণে বাধ্য নয় স্ত্রী: সুপ্রিম কোর্ট

নয়াদিল্লি: পাত্র-পাত্রী ভিন্ন ধর্মের হলে বিয়ের পরে স্বামীর ধর্মই স্ত্রীর ধর্ম হয়ে যাবে, এ কথা আইন বলে না। এই সংক্রান্ত একটি মামলায় বোম্বে হাইকোর্টকে রায় পুনর্বিবেচনা করার নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত। আজ বৃহস্পতিবার এই মন্তব্য করে সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ।

বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র এবং বিচারপতি একে সিক্রি, এএম খানউইলকর, ডিওয়াই চন্দ্রচূড় ও অশোক ভূষণের বেঞ্চ জানিয়েছে, বিয়ে কখনোই একজন নারীর নাগরিক অধিকার কেড়ে নিতে পারে না।

গুলরুখ গুপ্ত নামে মহারাষ্ট্রের এক এক পার্সি মহিলা হিন্দু ধর্মের এক ব্যক্তিকে বিয়ে করেন। পার্সি বিধান অনুযায়ী, ওই সম্প্রদায়ের কোনো নারী অন্য ধর্মে বিয়ে করলে তিনি আর পার্সি থাকেন না। ধর্মানুষ্ঠানে থাকার অধিকারও হারিয়ে ফেলেন তিনি।

সেই নিয়ম অনুযায়ী ভালসার জোরোস্ত্রিয়ান ট্রাস্ট গুলরুখকে বাবার শেষকৃত্যে থাকার অনুমতি দিতে চায়নি। তারই প্রতিবাদ করে মুম্বাই হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন গুলরুখ গুপ্ত। কিন্তু হাইকোর্টও ট্রাস্টের সেই নিয়মের পক্ষেই মত দেন। এরপর গুলরুখ সুপ্রিম কোর্টে যান।

সেই মামলার শুনানিতেই আদালত স্পেশাল ম্যারেজ অ্যাক্টের প্রসঙ্গ তুলে জানান, দুই ভিন্ন ধর্মের পুরুষ আর নারী বিয়ের পর নিজেদের ধর্মীয় পরিচয় বজায় রাখতে পারেন। বিয়ের পর স্বামীর ধর্মই স্ত্রীর ধর্ম হবে, এ কথা আইন বলে না। পাশাপাশি, বাবা-মায়ের প্রতি তার সন্তানদের আবেগকে গুরুত্ব দিয়ে এই নিয়ম শিথিল করার জন্যও পার্সি সমাজকে পরামর্শ দেন আদালত।