Monday, June 24, 2024
দেশ

কোনওমতেই ভারতকে হিন্দুরাষ্ট্র হতে দেওয়া যাবে না: সিদ্দিকুল্লা

বালুরঘাট: সাম্প্রদায়িক শক্তির উসকানিতে সিদ্ধহস্ত বিজেপি। কোনওমতেই ভারতবর্ষকে হিন্দু রাষ্ট্র হতে দেওয়া যাবে না। গেরুয়া শিবিরকে সাম্প্রদায়িক শক্তি অ্যাখা দিয়ে এদিন প্রকাশ্য সভায় এভাবেই কড়া ভাষায় আক্রমন করলেন রাজ্যের জনশিক্ষা প্রসার ও গ্রন্থাগার মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার দক্ষিণ দিনাজপুরের কমারগঞ্জের প্রকাশ্য সভায় দাড়িয়ে জামাতে-উলেমায়ে হিন্দের রাজ্য সভাপতি সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী বলেন, কোনও ভাবেই ভারতবর্ষকে হিন্দু রাষ্ট্র হতে দেওয়া যাবে না। আর এজন্যেই দেশের ২২ হাজার কিলোমিটার সীমান্তবর্তী এলাকায় সংগঠনের কর্মী-সমর্থকদেরকে সদা সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

সিদ্দিকুল্লা চৌধুরীর কথায়, বাংলাদেশ লাগোয়া জেলাগুলিতে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের পাশাপাশি বিজেপি ও আরএসএস থেকেও দূরে থাকতে হবে।

প্রসঙ্গত, লালবাতি ব্যবহার করছেন না দেশের প্রধানমন্ত্রী থেকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তকে অন্য রাজ্য সমর্থন করলেও এবিষয়ে প্রথম থেকেই বিরোধিতা করে এসেছে পশ্চিমবঙ্গ। কেন্দ্রের নির্দেশ অমান্য করে এরাজ্যের নেতা মন্ত্রীরা লালবাতি ব্যবহার করছেন। এই অভিযোগ একাধিকবার সামনে এসেছে। এবার সামনে এল অভিযোগের সত্যতা। গাড়িতে লালবাতি ব্যবহার করতে দেখা গেল সিদ্দিকুল্লা চৌধুরিকে। আজ শুক্রবার দুপুরে লালবাতি লাগানো গাড়ি চড়ে বালুরঘাট আসেন সিদ্দিকুল্লা চৌধুরি। যা নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। তবে এনিয়ে মন্ত্রী ও জেলা প্রশাসনিক আধিকারিকদের কোনও প্রতিক্রিয়া সামনে আসেনি।

ঘটনা সামনে আসার পর প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। কেউ কেউ বলছেন, যেখানে প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এমনকি বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও লালবাতি ব্যবহার করছে না, সেখানে সিদ্দিকুল্লা চৌধুরি লালবাতির ব্যবহার করছেন কেন?

তবে শুধুমাত্র সিদ্দিকুল্লা চৌধুরিই নন, উত্তরবঙ্গ উন্নয়নদপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা ও প্রাক্তন পূর্তমন্ত্রী শঙ্কর চক্রবর্তীও মাঝে মাঝে লালবাতি লাগানো গাড়ি ব্যবহার করেন বলে অভিযোগ তুলেছেন বিরোধীরা।