Monday, May 20, 2024
আন্তর্জাতিক

বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথম, একসঙ্গে ২০ হাজার কণ্ঠে গীতা পাঠের অনুষ্ঠান

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথম। বাংলাদেশের দিনাজপুরে একসঙ্গে ২০ হাজার কণ্ঠে পবিত্র গীতা পাঠ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই অনুষ্ঠানে অংশ নেন দিনাজপুরসহ আশপাশের কয়েকটি জেলা উপজেলার বিভিন্ন বয়সের হাজার হাজার নারী-পুরুষ ভক্ত ও পুণ্যার্থীবৃন্দ।

শনিবার (২৭ এপ্রিল ২০২৪) সকালে রংপুর বিভাগীয় পবিত্র বেদ ও গীতা শিক্ষাদান সংঘের আয়োজনে ঐতিহাসিক শ্রীশ্রী কান্তজীউ মন্দির চত্বরে ‘শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা পাঠ’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভুমিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এমপি। উদ্বোধন ছিলেন প্রাক্তন এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল।

ভূমিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এমপি বলেন, ‘বাংলাদেশে সংখ্যালঘু বলে কিছু নেই। এদেশ হিন্দু, মুসলিম, খ্রিষ্টানসহ সকল ধর্মের রক্তের বিনিময়ে স্বাধীন করেছি। এই দেশে সকল ধর্মের মানুষের সমান অধিকার রয়েছে। আমরা বাঙালি, আমরা নাগরিক দিক থেকে আমরা বাংলাদেশি। অতএব আমরা এখানে সংখ্যালঘু নই। তবে আমাদের যে সাম্প্রদায়িক ঐতিহ্যের ইতিহাস রয়েছে, সেই ইতিহাস আমাদের ধরে রাখতে হবে। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। বাংলাদেশ শতকরা ৯৫ ভাগ মানুষ অসাম্প্রদায়িক চেতনার। তবে কিছু ব্যক্তি তাদের ব্যক্তি স্বার্থে অথবা রাজনৈতিক স্বার্থে উস্কানি দিয়ে মানুষকে সামাজিক ভাবে বিভ্রান্ত করে। সুতরাং আমাদের দীর্ঘ দিনের সম্প্রীতি কেউ যদি ক্ষুন্ন করতে চায় তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’

এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেন, ‘দিনাজপুরে একসঙ্গে ২০ হাজার কণ্ঠে গীতা পাঠ সমগ্র বাংলাদেশে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। পবিত্র গীতাকে অন্তরে ধারণ করলে কাউকে দেশ ত্যাগ করতে হবে না। গীতা পূর্ণাঙ্গ একটি জীবন দর্শন। গীতাকে অবলম্বন করলে সুন্দর একটি জীবন ধারন করা যায়।’ 

তিনি বলেন, ‘সকল ধর্মের মানুষের রক্তের বিনিময়ে এই দেশ স্বাধীন হয়েছে। তাই দেশের সকলের সমানভাবে বসবাসের অধিকার রয়েছে। তিনি বলেন, দেবোত্তর সম্পত্তি সুরক্ষা আইন পাশের বিষয়ে সকলকে একসঙ্গে অধিকার আদায়ের বিষয়ে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানান।’ চ্যানেল আই