Monday, June 24, 2024
বিনোদন

‘পদ্মাবতী’ মুক্তি পেলে আগুন জ্বলবে প্রেক্ষাগৃহে: বিজেপি বিধায়ক

অনুমতি ছাড়া ‘পদ্মাবতী’ দেখানো হলে পুড়িয়ে দেওয়া হবে প্রেক্ষাগৃহ। এমনই হুমকি দিলেন তেলেঙ্গানার গোশামল এলাকার বিধায়ক টি রাজা সিং লোধ।

মঙ্গলবার এক জনসভায় অংশ নিয়ে প্রকাশ্যে ‘পদ্মাবতী’র বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন টি রাজা সিং লোধ। পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালিকে ‘কুকুর’ বলে সম্বোধন করেন তিনি। বলেন টাকা কামাতেই এই ধরনের সিনেমা তৈরি করা হয়। আর ইতিহাসকে বিকৃত করা হয়। কিন্তু এটা তারা হতে দেবেন না বলে জানান বিধায়ক।

তিনি বলেন, অনুমতি ছাড়া কোনও প্রেক্ষাগৃহে ‘পদ্মাবতী’ দেখানো হলে তা পুড়িয়ে দেওয়া হোক। এর পর যদি কেউ এ কাজের জন্য গ্রেপ্তারও হন তাহলে তাকে ছাড়ানো তার দায়িত্ব বলে প্রকাশ্য জনসভায় ঘোষণা করেন বিজেপি বিধায়ক টি রাজা।

তার দাবি, আগে এ ছবি হিন্দু সংগঠনের প্রধানদের দেখাতে হবে। ছবি দেখে যদি তাঁরা মনে করেন ছবিতে ক্ষত্রিয় রাজাদের কোনওভাবে অসম্মান করা হয়নি তাহলেই ছবির মুক্তির অনুমতি দেওয়া হবে।

এদিকে সর্ব ব্রাহ্মণ মহাসভা নামের এক সংগঠনও ‘পদ্মাবতী’র মুক্তির বিরোধিতা করেছে। সংগঠনের সভাপতি সুরেশ মিশ্র জানান, ইতিহাসের কোনও প্রকার বিকৃতি মহাসভা সহ্য করবে না। তাই সংগঠনের তরফ থেকে ছবি মুক্তির বিরোধিতা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

১ ডিসেম্বর মুক্তি পাওয়ার কথা রানি পদ্মাবতী, রাজা রতন সিং এবং সুলতান আলাউদ্দিন খিলজির উপর নির্মিত ছবি ‘পদ্মাবতী’। কিন্তু ছবি নিয়ে অনেকদিন ধরেই চলছে ঝামেলা। দিন কয়েক আগেও কার্নি রাজপুত সেনার তরফ থেকে শাসিয়ে বলা হয়েছে, ‘আমাদের অনুমতি ছাড়া যদি ছবি মুক্তি পায়, তবে আমাদের দলের সদস্যরা বানসালিকে ঠিক খুঁজে বের করে আবার থাপ্পড় মারবে।’

এর আগে রাজস্থানে ‘পদ্মাবতী’র শুটিং শুরু করতে গেলে স্থানীয় মানুষের বিক্ষোভের মুখে সেখান থেকে সেট সরিয়ে নিতে বাধ্য হন পরিচালক বানসালি। পরে ছবির শুটিং শেষ হলে সেই রাজস্থান থেকেই আসে আরেক বাধা। হুঁশিয়ারি দেয় জয় রাজপুতানা সংঘ। জানানো হয়, অনুমতি ছাড়া রাজস্থানের কোনও সিনেমা হলে ‘পদ্মাবতী’মুক্তি দিলে সেই হল পুড়িয়ে দেয়া হবে।