Thursday, June 13, 2024
আন্তর্জাতিক

যৌনদাসী বানাতে ১৫ ঊর্ধ্ব মেয়ে ও ৪৫-এর নীচে বিধবাদের তালিকা চাইল তালিবান

কাবুল: অন্ধকারের পথে আফগানিস্তান। জঙ্গিগোষ্ঠী তালিবান দাবি করেছে, আফগানিস্থানের ৮০ শতাংশ এলাকা নিজেদের দখলে নিয়েছে তাঁরা। আফগানিস্তান থেকে আমেরিকা এবং ন্যাটোর সেনাবাহিনী প্রত্যাহারের পর থেকেই তালিবানদের বাড়বাড়ন্ত ব্যাপক হারে বেড়েছে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সূত্রে খবর, আফগানিস্তানে ফের যৌনদাসী প্রথা ফিরতে চলেছে। এই খবরে আতঙ্ক বিরাজ করেছে গোটা আফগানিস্তানে।

সম্প্রতি তালিবান কালচারাল কমিশন একটি নির্দেশিকা জারি করেছে সেখানে বলা হয়েছে, তালিবান যোদ্ধাদের বিয়ে দেওয়ার জন্য পাত্রী চাই। শর্ত, পাত্রীদের ১৫ বছরের ঊর্ধ্বে তরুণী হতে হবে। বিধবা হলে ৪৫ বছরের নীচে হতে হবে। তাদের বিয়ে করে পাকিস্তানের ওয়াজিরিস্তানে নিয়ে যাওয়া হবে। তাদের সবাইকে মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করতে হবে। ইমাম, মোল্লাদের শর্ত অনুযায়ী তালিকা পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এই খবরে চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। ইতিমধ্যে ইরান, পাকিস্তান, উজবেকিস্তান, তাজাকিস্তানের সীমান্ত লাগোয়া একাধিক অঞ্চল দখল করে নিয়েছে তালিবানরা। তালিবানের এই নির্দেশে ভয়ে কাঁপছেন আফগানিস্তানের অভিভাবকরা। তাঁদের আশঙ্কা, এবার জোর করে বাড়ির তরুণীদের তুলে নিয়ে যাবে তালিবান জঙ্গিরা। বিশ্লেষকদের মতে, আফগানিস্তানে তালিবান শাসন কায়েম হলে জেহাদের নামে জঙ্গিদের লালসা মেটাতে যৌনদাসীতে পরিণত করা হবে তরুণীদের। ভিনধর্মীদের অবস্থা আরও শোচনীয় হয়ে পড়বে।

২০০১ সালে আমেরিকার হস্তক্ষেপের আগে তালিবানি শাসনামালে আফগানিস্তানে মেয়েদের স্কুলে যাওয়া, বাড়ির বাইরে কাজে বেরনো বা পুরুষ সঙ্গী ছাড়া বাড়ি ছেড়ে বেরনো-সবই নিষিদ্ধ ছিল। ফতোয়া অগ্রাহ্য করলে প্রকাশ্যে শাস্তি-সহ নানা বিধিনিষেধ ছিল। আফগানিস্তানের বুদ্ধিজীবী মানুষরা এখন সেই অন্ধকারাচ্ছন্ন জমানার পদধ্বনিই শুনতে পাচ্ছেন।