Tuesday, June 18, 2024
রাজ্য​

কোভিডে অনাথ শিশুর তথ্যে ‘গরমিল’, মমতা সরকারকে তীব্র ভর্ৎসনা সুপ্রিম কোর্টের

নয়াদিল্লি: ফের সুপ্রিম কোর্টে মুখ পুড়লো রাজ্য সরকারের। করোনার জেরে মারা গিয়েছেন বহু মানুষ। অনেকে বাবা-মাকে হারিয়ে অনাথ হয়ে পড়েছেন। বাবা-মা না থাকার দরুণ অন্ধকার নেমে এসেছে তাদের জীবনে। সেই সমস্ত অনাথ শিশুদের সুরক্ষায় উদ্যোগী হয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। ১৮ বছর বয়স অবধি তাদের ফ্রিতে পড়াশোনা, ২৩ অবধি ভাতা এবং স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য এককালীন বড় অংকের টাকা দেওয়ার ঘোষণা করেছিল কেন্দ্র। প্রত্যেকটি রাজ্যের কাছে করোনায় অনাথ শিশুদের তালিকা চেয়েছিল কেন্দ্র। কিন্তু করোনায় অনাথ শিশুদের তালিকা দিয়ে সুপ্রিম কোর্টের তীব্র ভর্ৎসনা মুখে পড়ল পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

রাজ্য সরকারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, করোনায় বাংলায় অনাথ হয়েছে ২৭ জন শিশু। এই রিপোর্ট দেখে রীতিমতো ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি এল নাগেশ্বর রাও। রাজ্যকে তীব্র ভর্ৎসনা করে তিনি বলেন, এত বড় রাজ্যে করোনায় বাবা মাকে হারিয়ে অন্ধ হয়ে পড়েছেন মাত্র ২৭ জন। এই রিপোর্ট আদেও গ্রহণযোগ্য নয়।

পরিস্থিতি সামাল দিতে রাজ্য সরকারের তরফে দাবি করা হয়, তালিকা তৈরির কাজ এখনও চলছে। তখন তোপ দেগে বিচারপতি নাগেশ্বর রাও পালটা বলেন, দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকুন এবং অজুহাত দেখাবেন না। পরিস্থিতির গুরুত্বটা বোঝার চেষ্টা করুন। অনাথরা খেতে, পড়তে পারছে না। অসহায় জীবন যাপন করছে। রাজ্যের উচিত ওদের দায়িত্ব নেওয়া, আমাদের নয়। আমরা কেবল শিশুদের অধিকার নিশ্চিত করতে পারি। এটা কোনও রাজনৈতিক বিষয় নয়। এখানেও কেন্দ্র বনাম রাজ্য সংঘাত সামনে আনবেন না।

এরপরই সুপ্রিম কোর্টের তরফে বলা হয়, যদি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে করোনায় অনাথ হওয়া শিশুদের সঠিক পরিসংখ্যান না জমা দেওয়া হয়, তবে প্রয়োজনে তদন্তের নির্দেশ দেবে শীর্ষ আদালত।