Tuesday, May 21, 2024
বিনোদন

রাজ্যসভায় নিজের বক্তব্য রাখার সুযোগ পেলেন না সচিন

নয়াদিল্লি: নিজের জীবনের অন্যতম লজ্জাজনক ঘটনার সম্মুখীন হলেন ভারতরত্ন সচিন রমেশ তেন্ডুলকর। প্রথমবারের মতো ভারতের পার্লামেন্ট রাজ্যসভায় বক্তব্য রাখতে এসে কংগ্রেসের হট্টগোলের কারণে তাকে নির্বাক দাঁড়িয়ে থাকতে হলো ১০ মিনিট। পরে নিজের বক্তব্য না দিয়েই বসে পড়েন তিনি।

রাজ্যসভার সাম্মানিক সদস্য ক্রিকেট কিংবদন্তী সচিন টেন্ডুলকরের ৫ বছরে প্রথমবার রাজ্যসভায় বক্তব্য রাখার কথা ছিলো। কিন্তু সদ্য সমাপ্ত গুজরাত নির্বাচনের হাওয়া এখনও উত্তপ্ত করে রেখেছে রাজ্যসভাকে। সেই উত্তপ্ত পরিবেশই সচিনকে দিল না তার বক্তব্য রাখতে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বক্তব্যে উঠে আসে গুজরাতের নির্বাচন। সেইসঙ্গে উঠে আসে সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং-এর প্রসঙ্গও। মোদীর বক্তব্যের পরই বক্তব্য দেয়ার জন্য উঠে দাঁড়ান সচিন। কিন্তু বিরোধী দল কংগ্রেসের সদস্যরা তখন উঠেপড়ে লেগেছে মোদীর বক্তব্যের ব্যাখ্যা চাইতে। চেঁচিয়ে স্লোগান দিয়ে তারা তখন মোদীর নিন্দায় মুখর।

ভারতরত্ন জয়ী মাস্টার ব্লাস্টার বারবার স্পিকারের কাছে আপিল জানানোর চেষ্টা করলেও কংগ্রেসের স্লোগানে তা হারিয়ে যায়। রাজ্যসভার সভাপতি এম ভেঙ্কায়াহ নাইডু তো বলেই বসেন, “আপনারা ক্রীড়া বিষয়ক কোনও কিছু শুনতে চাইছেন না। ভারতরত্নকে অসম্মান করছেন। ভারতীয় ক্রিকেটের জীবন্ত কিংবদন্তিকে অপমান করছেন। এটা কোনও পদ্ধতি হতে পারে না।”

এরকম হট্টগোলের মধ্যে নিরুপায় হয়ে সচিনকে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়েছে ১০ মিনিট। পরে নিজের বক্তব্য না দিয়েই বসে পড়েন তিনি।

রাজ্য সভা এমপি অভিনেত্রী জয়া বচ্চন পার্লামেন্টের বাইরে এসে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিশ্বমঞ্চে সচিন ভারতের মুখ উজ্জ্বল করেছে। এটা একটা লজ্জার ব্যাপার যে আজ তাকেই কথা বলতে দেয়া হয়নি। রাজ্যসভায় কি কেবল রাজনীতিবিদেরাই বক্তব্য রাখবে?’