Monday, June 24, 2024
দেশ

৬ বছরে ৭০০ কোটি টাকার কর ফাঁকি দিয়েছে দৈনিক ভাস্কর: আয়কর দফতর

নয়াদিল্লি: রাজনৈতিক অভিসন্ধির জেরে নয়, উপযুক্ত অভিযোগ পেয়েই হানা দেওয়া হয়েছিল দৈনিক ভাস্কর (Dainik Bhaskar) সংবাদপত্রের অফিসে। আয়কর দফতর জানিয়েছে, ৬ বছরে ৭০০ কোটি টাকা কর ফাঁকি দিয়েছে হিন্দি সংবাদপত্র দৈনিক ভাস্কর। এমনকি, এই সংস্থার সাথে একদমই যোগ নেই এমন সংস্থার সঙ্গে ২ হাজার ২০০ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। আয়কর দফতরের রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, সংস্থার লভ্যাংশের নথি ও স্টক মার্কেটের নিয়ম লঙ্ঘন করেছে দৈনিক ভাস্কর।

গত বৃহস্পতিবার দৈনিক ভাস্কর সংবাদপত্রের অফিসে আয়কর হানা দেওয়ার ঘটনায় সরগরম হয়ে ওঠে দেশের রাজনীতি। আয়কর ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগে অভিযোগে দৈনিক ভাস্করের ৩০ থেকে ৩৫টি ঠিকানায় হানা দিয়েছিল আয়কর দফতরের আধিকারিকরা। দিল্লি, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট, রাজস্থান এবং মহারাষ্ট্রে ভাস্করের বিভিন্ন অফিসে তল্লাশি চালানো হয়।

বিবৃতিতে আয়কর দফতর জানিয়েছে, কর্মীদের নামে একাধিক ভুয়ো সংস্থা চালাতো সংবাদপত্রটি। ভুয়ো সংস্থাগুলো যেসব কর্মীর নামে তাঁরা নিজেরাই জানেন না ওই সংস্থার ব্যাপারে। তাঁদের আধার কার্ড ও ডিজিটাল সাক্ষর ব্যবহার করেই তাঁদের নামে সংস্থা খোলা হয়েছে। কর্মীরা নিজেরাই স্বীকার করেছেন তাঁরা সংস্থাগুলো সম্পর্কে জানেন না। অথচ কর্মীদের কোম্পানির অংশীদার হিসেবে দেখানো হয়েছে। এভাবেই আইনের চোখে ধুলো দিয়ে চলত হিসাব-বহির্ভূত আর্থিক লেনদেন। ১০০টিরও বেশি এরকম সংস্থা রয়েছে ভাস্করের।

আয়কর দফতর বলছে, খরচের ভুয়ো হিসেব দেখানো এবং ভুয়ো উপায়ে লভ্যাংশের জন্যই একাধিক ভুয়ো সংস্থা গড়ে তোলা হয়েছিল। এভাবে গত ৬ বছরে প্রায় ৭০০ কোটি টাকা কর ফাঁকি দিয়েছে দৈনিক ভাস্কর। তবে টাকার অঙ্ক আরও বাড়তে পারে মনে অনুমান আয়কর দফতরের।

বিরোধীদের অভিযোগ, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় সরকারের ব্যর্থতা বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরার অপরাধেই আয়কর দফতরের রোষানলে পড়তে হল ভাস্করকে। তবে এ বিষয়ে দৈনিক ভাস্করের সাফ বার্তা, চাপের মুখে হাল ছাড়ব না আমরা। সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে আমরা দৃঢ়বদ্ধ থাকব।