Monday, June 24, 2024
দেশ

ছেলে পুলিশ সুপার, স্যালুট করতে গর্ববোধ কনস্টেবল বাবার

লখনউ: প্রত্যেক বাবার জীবনে স্বপ্ন থাকে যেন তার ছেলে কর্মজীবনে তাঁকেও ছাড়িয়ে যায়। এমনই ঘটনা ঘটেছে উত্তরপ্রদেশে। রবিবারই লখনউ পুলিশের এসপি (নর্থ) হিসেবে দায়িত্ব নিলেন অনুপ সিংহ। তাঁর বাবা জনার্দন সিংহ সেই এলাকারই বিভূতি খণ্ড থানার কনস্টেবল। একজন বাবার জন্য এর থেকে গর্বের কী বা হতে পারে। ছেলে এখন তার ‘বড় সাহেব’। তিনি ছেলেকে স্যালুট করবেন দেখা হলেই। এখন তাঁকে কাজ করতে হবে ছেলেরই অধীনে।

জনার্দন সিংহ কনস্টেবলের সামান্য মাইনের চাকরী করে ছেলেকে বড় করেছেন অনেক কষ্টেই। রীতিমতো কাঠখড় পুড়িয়ে বড় করেছেন ছেলে অনুপ সিংকে। নিজের অনেক শখ, ইচ্ছে ত্যাগ করতে হয়েছে ছেলের সাফল্যের স্বার্থে। সেই ত্যাগকে মর্যাদা দিয়েছেন ছেলে অনুপ। কষ্টের মধ্যে দিন কাটানো অনুপ এখন লখনউয়ের পুলিশ সুপার। সত্যিই তো একজন বাবার জন্য এর থেকে গর্বের আর কী হতে পারে? স্বাভাবিকভাবেই গর্বিত বাবা। নিজের সন্তুষ্টি গোপন করেননি তিনি।

সংবাদসংস্থাকে জনার্দন সিংহ বলেন, আমি আমার ‘সিনিয়র’ ছেলেকে নিয়ে গর্বিত। এটা আমার কাছে একটা সম্মানের বিষয়। তাঁর অধীনে কাজ করতে আমার ভালোই লাগবে। প্রোটোকল অনুযায়ী ছেলে কে স্যালুট করাটা দস্তুর। তাতে অবশ্য বিন্দুমাত্র আপত্তি নেয় জনার্দন সিংয়ের। তিনি বলছেন, যখনই ডিউটিতে থাকব ছেলেকে স্যালুট করব। এতে লজ্জার কিছু নেই। জনার্দনের কথায় অনুপ তাঁর থেকে আরও শক্ত একজন পুলিশ অফিসার।

বাবা তো খুশি। কিন্তু ছেলে কী বলছেন। লখনউ উত্তর এলাকার সদ্যনিযুক্ত পুলিশ সুপার বলছেন, বাবার কাছ থেকে অনেক কিছু শিখেছি। এখন একসঙ্গে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছি। তিনি খুশি যে তাঁর বাবার সঙ্গে কাজ করতে পারবেন। অনুপ বলেন, সবারই ব্যক্তিগত ও কাজের জীবন রয়েছে। পদ অনুযায়ী যার যেরকম কাজ সেই রকমই কাজ করব আমরা। কাজের সমীকরণ তাঁদের ব্যক্তিগত জীবনে কোনও প্রভাব ফেলবে না বলেই অনুপের দাবি।