Thursday, May 23, 2024
রাজ্য​

ঠাকুরনগরের জনসভায় মোদীর ১০টি বাছাই করা বক্তব্য

ঠাকুরনগর: শনিবার ঠাকুরবাড়ি আসেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বড়মার সঙ্গে দেখা করেই সভা শুরু করেন মোদী। বাংলায় ভাষণ শুরু করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

জনসভায় কী বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী:

  • ঠাকুরনগর হরিচাঁদ ঠাকুরের ভূমি। বিভূতিভূষণের ভূমি। এই মাটিকে প্রণাম করি।
  • চৈতন্য মহাপ্রভু, রামকৃষ্ণ পরমহংস, স্বামী বিবেকানন্দ, নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু, ঋষি অরবিন্দ, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, নজরুল ও শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের বাংলায় আজ অপশাসন চলছে।
  • হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, খৃষ্ট্রান ও শিখদের নাগরিকত্ব দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি আমরা। নাগরিকত্ব বিল আমার ভাই-বোনদের অধিকার রক্ষার জন্য। এই বিল দেশকে টুকরো টুকরো হতে দেবে না। কিন্তু এই বিলের বিরোধিতা করছে তৃণমূল। বিলকে সমর্থন করুন। ভারত মাতা কি জয়।
  • আমরা কৃষকদের নিয়ে রাজনীতি করি না।
  • এবার কোনও সিন্ডিকেট ট্যাক্স নয় সোজা ব্যাঙ্কে টাকা যাবে।
  • আপনারা আমাকে এত ভালোবাসেন যে তিলধারণের জায়গা নেই। ধন্যবাদ সকলকে। ভারত মাতা কি জয়। এত ভিড় দেখার পর আমি বুঝতে পারছি, কেন দিদি হিংসা ছড়াচ্ছেন। এটা আপনাদের ভালোবাসা। যে কারণে দিদি ভয় পেয়ে গণতন্ত্র বাঁচাওয়ের নাটক করে নিরীহ মানুষদের হত্যা করছে।
  • এই বাজেটে গরীব ও মধ্যবিত্তরা লাভবান হবেন।
  • কৃষকদের দুর্বলতার সুযোগ নিয়েছে কিছু স্বার্থপর রাজনৈতিক দল।
  • বাংলায় তিন কোটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলেছে। কৃষকদের জন্য বরাদ্দ বছরে ৬০০০ টাকা তিনটি কিস্তিতে অ্যাকাউন্টে ২০০০ টাকা করে জমা হবে। শীঘ্রই টাকা দেওয়া শুরু হবে। কৃষকরা বীজ, সার, ওষুধ কিনতে পারবেন। তাঁদের আয় বাড়বে।
  • কর্ণাটকে যেসকল কৃষকরা ঋণের টাকা দিতে পারছে না, তাদের পিছনে পুলিশ লাগানো হয়েছে। আর সেই কর্ণাটকের সরকার সমর্থন করছে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে।