Saturday, April 13, 2024
দেশ

রাজনীতিতে নামছেন তামিল সুপারস্টার রজনীকান্ত

চেন্নাই: বহুদিনের জল্পনা-কল্পনার ইতি টেনে রাজনীতিতে সক্রিয়ভাবে প্রবেশের ঘোষণা দিলেন তামিল সুপারস্টার রজনীকান্ত। বছরের শেষ দিনেই এই বোমাটি ফাটালেন তিনি। রবিবার চেন্নাইয়ের রাঘবেন্দ্র মণ্ডপে ভক্তদের সঙ্গে সাক্ষাতপর্বের ষষ্ঠ দিনে রাজনীতিতে প্রবেশের কথা স্পষ্ট করে দিলেন ‘থালাইভা’ স্বয়ং।

এর আগে গত ২৬ ডিসেম্বর ভক্তদের সমাবেশে রজনী বলেছিলেন, ‘‘রাজনীতির সঙ্গে আমার যোগ নতুন কিছু নয়। ১৯৯৬ সাল থেকেই রাজনীতির সঙ্গে যোগ রেখে চলেছি। তবে, প্রত্যক্ষ ভাবে রাজনীতিতে আসতে একটু দেরিই হয়ে গেলো। আগামী ৩১ ডিসেম্বর আমার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবো।’’

রবিবার, সকাল থেকেই রাঘবেন্দ্র মণ্ডপে ছিল উপচে পড়া ভিড়। ‘থালাইভা’কে দেখতে ভিড় জমিয়েছিলেন হাজার হাজার মানুষ। তার বক্তব্য শুরু হওয়ার পরই উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ে জনতা। রজনী বলেন, ‘দেশের গণতন্ত্র বিপর্যস্ত। রাজনীতিকরা গণতন্ত্রের নামে সাধারণ মানুষের জমি এবং সম্পত্তি হরণ করছেন। এটাই সঠিক সময় পরিবর্তনের।’ রজনীর মতে, ‘গণতন্ত্রের অবস্থা খুব খারাপ। দেশের অন্যান্য রাজ্য আমাদের (তামিলনাড়ু) নিয়ে মজা করছে। এখন সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করলে পরে আফসোস করব।’

রাজনীতিতে যোগ দেওয়ায় অনেকেই শুভেচ্ছা রজনীকান্তকে। রবিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন লিখেছেন, ‘আমার প্রিয় বন্ধু ও সহশিল্পী রজনীকান্ত রাজনীতিতে প্রবেশের ঘোষণা দিয়েছেন। তার জন্য রইলো শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আশা করছি প্রতিটি ক্ষেত্রে সফলতা পাবেন তিনি।’

দক্ষিণের জনপ্রিয় অভিনেতা কামাল হাসান বলেছেন, ‘রাজনীতিতে প্রবেশের জন্য তোমাকে শুভেচ্ছা আমার ভাই রজনী। স্বাগতম।’

অভিনেতা রিতেশ দেশমুখ ফেসবুকে লিখেছেন, ‘তিনি তার হৃদয় ও আত্মা শিল্পী রূপে সকলকে দিয়েছেন এবং মানুষের ভালোবাসা তাকে বানিয়েছে সুপারস্টার রজনীকান্ত। রাজনীতিতে যোগ দেওয়ায় আপনার জন্য রইলো শুভকামনা।’

গত কয়েক মাস ধরেই তামিল রাজনীতির অন্দরে নানা প্রশ্ন আনোগোনা করছিল। রজনীকান্ত কি রাজনীতিতে আসতে চলেছেন? এলেও কোন দলে যোগ দেবেন তিনি? বিজেপি-তেই কি যোগ দেবেন রজনী, না কি নিজের আলাদা দল গড়বেন? ঘনিষ্ঠ মহলেও সক্রিয় রাজনীতিতে যোগ দেয়ার কথা জানিয়েছিলেন। তবে, এদিন নিজের আলাদা দল গড়ার কথা স্পষ্ট করেছেন রজনী। চার বছর পরেই তামিলনাড়ু বিধানসভা নির্বাচন। সেই নির্বাচনকে পাখির চোখ করেই এগিয়ে যাওয়ার কথা ভাবছেন তিনি। তার কথায়, ‘শুধু নাম এবং যশের জন্য রাজনীতিতে আসছি না। তাহলে ১৯৯৬ সালেই সেটা করতে পারতাম। রাজ্য রাজনীতির শুদ্ধিকরণের জন্যই সক্রিয় রাজনীতি করব।’ আগামী নির্বাচনে তামিলনাড়ুর সবকটি আসনে তার দল প্রার্থী দেবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।