Tuesday, June 18, 2024
রাজ্য​

ভোট পরবর্তী হিংসা, উত্তরবঙ্গে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের প্রতিনিধি দল

কলকাতা: একুশের বিধানসভা ভোটের ফলাফল ঘোষণার পর পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন স্থান থেকে হিংসার খবর সামনে আসে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে দেখতে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনকে (National Human Rights Commission বা NHRC) নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। হাইকোর্টের নির্দেশে গত সোমবার ৭ সদস্যের দল গঠন করল জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। রাজীব জৈনের নেতৃত্বে গঠিত ওই দলটি রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে হিংসার খবর নথিভুক্ত করবে।

এই মুহূর্তে উত্তরবঙ্গ সফরে কেন্দ্রীয় মানবাধিকার কমিশনের প্রতিনিধি দল। বৃহস্পতিবার শিলিগুড়ি পৌঁছন তাঁরা। ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে ইতিমধ্যে শীর্ষ আদালতে ধাক্কা খেয়েছে রাজ্য সরকার। অভিযোগ, রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের কাছে ভোট পরবর্তী হিংসার একটিও অভিযোগ জমা পড়েনি। এদিকে, ৫৪১টি অভিযোগ জমা পড়েছিল জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের কাছে।

কলকাতা হাইকোর্টের আদেশে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন একটি দল গঠন করে। ওই দলে রাজ্য ও কেন্দ্র মিলিয়ে ৭ জন প্রতিনিধিকে রয়েছে। কমিশনের সদস্য রাজীব জৈন ছাড়াও ওই দলে রয়েছেন সংখ্যালঘু জাতীয় কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান আতিফ রশিদ, জাতীয় মহিলা কমিশনের সদস্য রাজুলবেন এল দেশাই, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের ডিজি পদ মর্যাদার তদন্তকারী অফিসার সন্তোষ মেহরা এবং মঞ্জিল সাইনি, রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের রেজিস্ট্রার প্রদীপ কুমার পাঁজা, রাজ্য লিগ্যাল সার্ভিস অথরিটির সদস্য সেক্রেটারি রাজু মুখোপাধ্যায়।

এই দলের মূল লক্ষ্য, হিংসার কারণে ঘরছাড়ারা যাতে পুনরায় নিজেদের বাসস্থান, কর্মক্ষেত্র ও স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে সেই উদ্দেশে কাজ করা। তাদেরকে সাহায্য করবে রাজ্য মানবাধিকার কমিশন ও পুলিশ। কোনওরকম অসহযোগিতার অভিযোগ উঠলে তার দায় রাজ্যকে নিতে হবে। এই নির্দেশ না মানলে আদালত অবমাননার পড়বে রাজ্যের ঘাড়ে বলেও সতর্ক করেছে আদালত।