Tuesday, June 18, 2024
দেশ

মণিপুরে অস্তিত্ব সংকটে, বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন প্রদেশ সভাপতি-সহ ৮ বিধায়ক

ইম্ফল: উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্য মণিপুরে অস্তিত্বের সংকটে ভুগছে বিরোধীদল কংগ্রেস। মঙ্গলবার মণিপুর প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন গোবিন্দদাস কোন্থাজম (Govindas Konthoujam)। দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই তিনি ইস্তফা দিয়েছেন বলে খবর।

জানা গিয়েছে, গোবিন্দদাস কোন্থাজম এবার বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন। তবে তিনি একা নয়, কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন দলের আরও ৭ বিধায়ক।


২০১৭ সালে মনিপুর বিধানসভা নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছিল কংগ্রেস। বিধানসভার মোট ৬০টি আসনের মধ্যে ২৮টি আসনে জয়লাভ করেছিল কংগ্রেস। ২১টি আসন পেয়েছিল বিজেপি। এনপিপির ৪টি আসন, এনপিএফয়ের ৪টি আসন, তৃণমূলের ১টি আসন এবং এনজেপির ১টি আসন ও ১ নির্দল বিধায়কের সমর্থনে বিজেপি সরকার করেছিল মনিপুর।

এন বীরেন সিংয়ের (N. Biren Singh) নেতৃত্বে মণিপুরে সরকার গঠন করে বিজেপি। পরে ৭ জন কংগ্রেস বিধায়ক পদত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দেন। তবে দলত্যাগ বিরোধী আইনে বিধায়ক পদ খোয়াতে হয়েছে তাদের। এবার আরও ৮ কংগ্রেস বিধায়ক বিজেপির পথে। গত বছরের আগস্টে NDA জোট ভাঙিয়ে সরকার গঠনের চেষ্টা করেছিল কংগ্রেস। কিন্তু ব্যর্থ হয় তাঁরা।

গত বছরের ডিসেম্বরে গোবিন্দদাসকে প্রদেশ সভাপতি নিয়োগ করে কংগ্রেস। ৬ বারের বিধায়ক গোবিন্দদাস এর আগে বিধানসভায় কংগ্রেসের মুখ্য সচেতকের দায়িত্বে ছিলেন। তার পদত্যাগে কংগ্রেস বড়সড় ধাক্কা খেল বলেই মনে করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি, আগামী বছরই মণিপুরে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কংগ্রেসের টার্গেট অন্তত ৪৫টি আসনে জয়লাভ করে রাজ্যে ক্ষমতায় আসা। কিন্তু গোষ্ঠীকোন্দল এবং দলবদলে এই হিড়িকের মধ্যে সেটা কিভাবে সম্ভব হবে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।