Friday, May 24, 2024
দেশ

মধ্যপ্রদেশে বিজেপির ক্ষমতায় ফিরতে ২০ বছরের পুরনো ‘মোদী ফর্মুলা’

ভোপাল: পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনের আগে কার্যত সেমিফাইনাল। লোকসভার আগে জয় ছিনিয়ে নিয়ে বিজেপি ও কংগ্রেস দু’পক্ষই মনোবল বাড়িয়ে রাখতে চাইছে। মধ্যপ্রদেশে বিজেপির সাফল্যের জন্য দুই দশক পুরনো ‘মোদী ফর্মুলা’ই ফের ক্ষমতায় আনতে পারে মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানকে। সেই ফর্মুলার সুফল ভোগ করেই একটানা ১৫ বছর মধ্যপ্রদেশে ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি। মনে করা হচ্ছে যদি বিজেপিকে রাজ্যে ফের ক্ষমতায় আসতে হয় তাহলে এই ফর্মুলাই আনবে।

নব্বইয়ের দশকে বিজেপির অন্যতম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন নরেন্দ্র মোদী। মধ্যপ্রদেশের দায়িত্ব তাঁকে দেওয়া হয়। সেইসময় তাঁকে ডাকা হতো মাস্টার সাহিব নামে। ১৯৯৮ সালের ভোটে মধ্যপ্রদেশে বিজেপি প্রথমবার বড় প্রতিপক্ষ হিসাবে উঠে আসে। সেইসময়ে সারা দেশে সবচেয়ে শক্তিশালী ঘাঁটি মধ্যপ্রদেশেই ছিল বিজেপির।

এরপর মোদী মধ্যপ্রদেশে বিজেপির ইনচার্জ হয়েই দলে একাধিক বদল আনেন। সেইসময়ে দলের অনেক নেতাই তা ভালোভাবে নেননি। তবে সুন্দর লাল পাটওয়া, বিক্রম বর্মা, কৈলাশ জোশী, উম ভারতীদের মোদী প্রাধান্য দেন। বিশেষ করে তপশিলি জাতি-উপজাতিদের যেখানে অতটা মান্যতা দেওয়া হতো না, সেখানে মোদী জোর দেন।

মধ্যপ্রদেশে সমাজের একেবারে তলানিতে থাকা শ্রেণিকে এক ছাতার তলায় নিয়ে আসার কাজ শুরু করে দেন মোদী। অনেকে সেই সময় কড়া বিরোধ জানালেও তাতে কর্ণপাত করেননি মোদী। যার ফল ২০০৩ সালের ভোটে বিপুল জয় পায় বিজেপি। এরপর একটানা ১৫ বছর সেরাজ্যে সরকার গঠন করে ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি। তাই উচ্চবর্ণের পাশাপাশি যে প্রান্তিক শ্রেণি বিজেপির উত্থানে বড় অবদান রেখেছিল সেটা বলা বাহুল্য।