Tuesday, May 21, 2024
দেশ

জম্মু-কাশ্মীরের বিধানসভা ভেঙে দিলেন রাজ্যপাল

শ্রীনগর: জম্মু ও কাশ্মীরের রাজনীতির নয়া মোড়। রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের শাসনের মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগেই বুধবার সন্ধ্যায় বিধানসভা ভেঙে দেওয়া হল। উল্লেখ্য, বুধবার পিডিপি সভানেত্রী মেহবুবা মুফতি ও পিপলস কনফারেন্স পার্টির সাজাদ লোন সরকার গড়ার দাবি জানিয়ে রাজ্যপালকে চিঠি লিখেছেন। এর কিছুক্ষণ পরেই বিধানসভা ভেঙে দেওয়া হল।

শত্রুতা ভুলে বুধবার জোট সরকার গড়তে সম্মত হয় পিডিপি, এনসি ও কংগ্রেস। পিডিপি সভানেত্রী মেহবুবা মুফতি রাজ্যপাল সত্যপাল মালিককে ইমেল করে সরকার গঠনের দাবি জানান। মেহবুবার দলের বিদ্রোহী নেতা ইমরান আনসারি দাবি করেন, তাঁর সঙ্গে ১৬ জন বিধায়ক আছেন। পিপলস কনফারেন্স নেতা সাজ্জাদ গনি লোন আবার জানান, বিজেপি-র সমর্থনে সরকার গঠনের দাবি জানিয়ে তিনি রাজ্যপালকে চিঠি দিয়েছেন।

এরপর সন্ধ্যায় রাজ্যপালকে চিঠি দিয়ে মেহবুবা দাবি করেন, তাঁর সঙ্গে ৫৬ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে। তাই তাঁকে সরকার গড়তে দেওয়া হোক। সাজ্জাদ পাল্টা দাবি করেন, তাঁর সঙ্গে ৪৪ জন বিধায়কের সমর্থন আছে। তাই তাঁকে সরকার গড়ার জন্য ডাকা উচিৎ রাজ্যপালের। মেহবুবা মুফতি ও সাজাদ লোন সরকার গড়ার দাবি জানানোর কিছুক্ষণ পরেই কোনও দলকেই সরকার গড়ার সুযোগ না দিয়ে বিধানসভা ভেঙেই দিলেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক।

রাজ্যপালের বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা। তিনি বলেন, তাঁর দল এনসি ৫ মাস ধরে বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার জন্য বলছে। তাই এটা কখনও কাকতালীয় হতে পারে না যে মেহবুবা মুফতির চিটি পাঠানোর কয়েক মিনিটের মধ্যেই বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ প্রকাশ্যে এল।

কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজ়াদ ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে বলেছেন, আমি আজ বিকালেই বলেছি যে এটা একটা পরামর্শ এবং এখনও কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি জোট সরকারের বিষয়ে। কিন্তু প্রস্তাবটা উঠতেই বিজেপি বিধানসভা ভেঙে দিয়েছে।