Tuesday, June 18, 2024
দেশ

অত্যাধুনিক অ্যান্টি-সাবমেরিন ‘রোমিয়ো’ হেলিকপ্টার হাতে পেল ভারতীয় নৌসেনা

নয়াদিল্লি: আরো শক্তিশালী হল ভারতের নৌ বাহিনী। একদশকের অপেক্ষার পর অত্যাধুনিক বহুমুখী ক্ষমতাসম্পন্ন দু’টি মার্কিন এমএইচ-৬০আর রোমিয়ো হেলিকপ্টার (MH-60R multi-role helicopter) হাতে পেল ভারতীয় নৌসেনা। শুক্রবার সান দিয়েগোর মার্কিন নৌসেনা ঘাঁটিতে ভারতের হাতে এই হেলিকপ্টার তুলে দেয় আমেরিকা। মোট ২৪টি মার্কিন এমএইচ-৬০আর রোমিয়ো হেলিকপ্টারের বরাত দিয়েছে ভারত। যার মোট মূল্য ২৪০ কোটি মার্কিন ডলার (ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১৭ হাজার ৮৩০ কোটির টাকা)।

অত্যাধুনিক এই হেলিকপ্টার নিতে সান দিয়েগোর নৌসেনা ঘাঁটিতে হাজির ছিলেন আমেরিকায় ভারতের রাষ্ট্রদূত তরণজিৎ সিংহ সান্ধু। হেলিকপ্টার পাওয়ার পর সান্ধু বলেন, এই হস্তান্তর ভারত-আমেরিকার বন্ধুত্ব আরও একটা নতুন পর্যায়ে নিয়ে গেল। টুইটে তিনি লেখেন, ‘ভারত-মার্কিন বন্ধুত্ব আকাশ ছুঁতে চলেছে।’

অত্যাধুনিক এই হেলিকপ্টার ওড়াতে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন ভারতীয় নৌসেনার ক্রুরা। ফ্লোরিডায় ১৫ জন ভারতীয় নৌসেনা অফিসার প্রশিক্ষণে অংশ নিয়েছেন। জানা গিয়েছে, এবছরের শেষের দিকে আরও একটি হেলিকপ্টার দেশে পৌঁছবে। বাকি ২১টি হেলিকপ্টার ধাপে ধাপে ২০২৪ সালের আগেই দেশে পৌঁছবে।

ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে, আগামীদিনে ভারতের শক্তিবৃদ্ধিতে মার্কিন নৌসেনা সব রকম সহায়তা করবে। এই চুক্তি ভারত-মার্কিন সামরিক সম্পর্ক ও অংশীদারির ক্ষেত্রে নতুন যুগের সূচনা করল। ২০২০ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন এই চুক্তি সম্পন্ন করেছিল ভারত।

উল্লেখ্য, এমএইচ-৬০আর হেলিকপ্টার যেকোনো আবহাওয়ায় মানিয়ে নিতে সক্ষম। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে পারে। সাবমেরিন ধ্বংস, সমুদ্রে তল্লাশি এবং উদ্ধারকাজ চালাতে অত্যন্ত দক্ষ রোমিয়ো হেলিকপ্টর। এই হেলিকপ্টারের সাথে যুক্ত থাকবে AGM-114 হেলফায়ার মিসাইল এবং MK 54 টর্পেডো। ভূমি বা যুদ্ধজাহাজ, ক্রুজার এবং ডেস্ট্রয়ার জাতীয় রণতরী থেকে টেক-অফ করতে পারবে রোমিয়ো।