Tuesday, June 18, 2024
আন্তর্জাতিক

উইঘুর মুসলিমদের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বিক্রি করে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার আয় করছে চিন

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: উইঘুর মুসলিমদের ওপর চিনের নির্যাতনের অভিযোগ এই নতুন নয়। বহুবার চিনের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু উইঘুরদের ওপর নির্যাতনের অভিযোগ সামনে এসেছে। এবার ‘হেরাল্ড সান’-এর এক প্রতিবেদনে চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে নিয়ে আসা হয়েছে। অভিযোগ, উইঘুর মুসলমানদের দেহাংশের কালোবাজারি করা হচ্ছে। এটা প্রশাসনের সামনেই হচ্ছে বলে অভিযোগ।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় দেড় লাখ মানুষকে জোর করে বন্দি করে রাখা হয়েছে। বন্দি অবস্থায় এই তাঁদের শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলি জোরপূর্বক বের করে নেওয়া হচ্ছে। মোটা অঙ্কের বিনিময় সেগুলোকে বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে। কড়া নজরদারিতে রাখা হয়েছে তাদেরকে। চলছে সিসিটিভি ক্যামেরা দিয়ে নজরদারি।

প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, বন্দিশিবিরে আটক উইঘুর মুসলিমদের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ চোরাবাজারে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলারে বিক্রি করা হচ্ছে। হৃষ্টপুষ্ট একটি লিভারের দাম পড়ে প্রায় দেড় লাখ ডলার (এক কোটি টাকার কাছাকাছি)। বছরে প্রায় সাড়ে আট হাজার কোটি টাকা মূল্যের অঙ্গ-প্রত্যক্ষের রমরমা ব্যবসা চালানো হচ্ছে। জাতিসঙ্ঘের মানবাধিকার কমিশন বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, সংখ্যালঘুদের ধর্মীয় স্থানও ধ্বংস করা হচ্ছে। তাঁদের বাড়ি থেকে টেনে নিয়ে ‘শিক্ষা কেন্দ্রে’ পাঠানো হচ্ছে। প্রচণ্ড মারধর করা হচ্ছে। চলছে জিজ্ঞাসাবাদ। মারধর করে তাঁদের মিথ্যা অপরাধও স্বীকার করানো হচ্ছে।

সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করতে নারীদের ব্যাপকভাবে বন্ধ্যাকরণ করা হচ্ছে। এএসপিআই রিপোর্ট বলেছে, ২০১৭ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে প্রায় ৮০,০০০ উইঘুর মুসলিমকে দেশের বিভিন্ন কারখানায় পাচার করা হয়েছিল। বাড়ি থেকে দূরে এইসব কারখানায় তাঁদের আলাদা করে রাখা হয়। কাজ শেষে তাঁদের তাত্ত্বিক প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। কোনও ধর্মীয় কাজে অংশ নিতে দেওয়া হয় না।