Friday, June 14, 2024
আন্তর্জাতিক

শান্তিতে নোবেল পেল আন্তর্জাতিক পারমাণবিক অস্ত্রবিরোধী সংগঠন আইক্যান

শান্তিতে নোবেল পেল আন্তর্জাতিক পারমাণবিক অস্ত্রবিরোধী মিশন নিয়ে কাজ করা সংগঠন দ্য ইন্টারন্যাশনাল ক্যাম্পেইন টু অ্যাবোলিশ নিউক্লিয়ার ওয়েপনস (আইক্যান)। পরমাণু অস্ত্রমুক্ত পৃথিবী গড়ার প্রচারণার স্বীকৃতি হিসেবে তারা এ সম্মানজনক পুরস্কারটি পেয়েছে।

এবছর নোবেল শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য ৩১৮ জন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিল। চূড়ান্ত পর্যায়ে আজ শুক্রবার ভারতীয় সময় বিকাল আড়াই টার দিকে নরওয়ের রাজধানী অসলোতে নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটির চেয়ারম্যান বেরিট রেইস-অ্যান্ডারসন বিজয়ী হিসাবে আইক্যানের নাম ঘোষণা করে।

শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের মনোনয়ন তালিকায় লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল, জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ, বুলগেরিয়ার অর্থোডক্স চার্চ, লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও, জো কক্স, ভ্লাদিমির পুতিন, ডেভিড বোয়ি এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতো প্রভাবশালী ব্যক্তিরা ছিলেন।

নোবেল কমিটি বলছে, পরমাণু অস্ত্রের ভয়াবহ পরিণতির বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা এবং এই ভয়ানক অস্ত্রকে নিষিদ্ধ করার লক্ষ্যে চুক্তি সম্পাদনের চেষ্টার জন্যে এই সংগঠনটিকে এবার শান্তি পুরস্কার দেওয়া হলো।

অনুষ্ঠানে কমিটির নেতা অ্যান্ডারসন বলেন, ‘আমরা এমন একটি বিশ্বে বাস করছি, যেখানে পারমাণবিক অস্ত্রের ঝুঁকি আগের চেয়ে অনেক বেশি।’ তাই পারমাণবিক অস্ত্র বিলুপ্তির জন্য জনমত সৃষ্টি করায় আইক্যান এ পুরস্কার অর্জন করেছে।

নোবেল কমিটির চেয়ারম্যান বেরিট রেইট এন্ডার্সন বলেন, পরমাণু অস্ত্র নিষিদ্ধ করার লক্ষ্যে চুক্তির ব্যাপারে সংগঠনটি বড়ো রকমের অগ্রগতি সাধন করেছে।

আইক্যানের নির্বাহী পরিচালক বেটরিস কেইন বলেন, আইক্যানের উদ্দেশ্য হচ্ছে পরমাণু অস্ত্রধারী দেশগুলোর কাছে একটি ম্যাসেজ দেয়া যে, তারা যে পরমাণু অস্ত্রের ওপর নির্ভর করছে তা অগ্রহণযোগ্য আচরণ। আমরা নিরাপত্তার নামে হাজার হাজার মানুষকে হত্যার মতো কোনো অস্ত্রকে মেনে নিতে পারি না। যা নিরাপত্তার নামে অন্যদের হত্যা করে তা কোনো দিন নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারে না।’

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের জুলাই মাসে আইক্যানের চাপে জাতিসংঘে পারমাণবিক অস্ত্র নিষিদ্ধ করার উদ্দেশ্যে ১২২টি দেশ এক প্রস্তাব গ্রহণ করে। কিন্তু পারমাণবিক শক্তিধর ৯টি দেশ যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, বৃটেন ও ফ্রান্সসহ  এই প্রস্তাবে সই করা থেকে বিরত থাকে।

নিয়ম অনুযায়ী, পুরস্কার হিসেবে আইক্যান সংগঠন পাবে ১১ লাখ ডলার ও একটি নোবেল পদক। আগামী ডিসেম্বর মাসে এক অনুষ্ঠানে সংগঠনটির হাতে এসব পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে।