Thursday, April 25, 2024
দেশ

রাজি ছিল নম্রতাও, তাই যৌন সম্পর্ক, বললেন ঋতব্রত

আজ বুধবার ফের ভবানীভবনে তলব করা হয় সিপিএম থেকে বহিষ্কৃত রাজ্যসভার সাংসদ ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়কে। বালুরগাটের তরুণী নম্রতা দত্তের করা বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের মামলায় মঙ্গলবার প্রায় ৬ ঘণ্টা জেরা করা হয় তাঁকে।

সিআইডির দাবি, নম্রতা দত্তের সঙ্গে তাঁর যৌন সম্পর্ক হয়েছিল বলে মঙ্গলবার জিজ্ঞাসাবাদের মুখে স্বীকার করেছেন  রাজ্যসভার সদস্য ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়।

সিআইডি-র প্রশ্নের জবাবে ঋতব্রত জানান, নম্রতার সঙ্গে তাঁর যৌন সম্পর্ক হয়েছে পরস্পরের সম্মতিতেই। গোয়েন্দাদের বক্তব্য, ঋতব্রত এ দিন দাবি করেছেন, বালুরঘাটের ওই তরুণীর ইচ্ছের বিরুদ্ধে তিনি কিছুই করেননি। যা করেছেন তাঁর সম্মতি নিয়েই।

গোয়েন্দা সূত্রের খবর, কাল, বৃহস্পতিবার ঋতব্রতের বিয়ে হওয়ার কথা তাঁর প্রেমিকা দুর্বা সেনের সঙ্গে। নম্রতাকে তিনি বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন কি না, এ বার মূলত সেটাই জানতে চাওয়া হবে তাঁর কাছে। সিআইডির হেফাজতে নেওয়া হবে তাঁর মোবাইল-সহ কিছু বৈদ্যুতিন সরঞ্জাম এবং নথিপত্র।

দুর্বা সেন জানিয়েছিলেন, ঋতব্রতের সঙ্গে তাঁর পরিচয় ২০১৫ সালে। ঘনিষ্ঠতা ২০১৬ থেকে। আর নম্রতার সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক কবে থেকে? সিআইডির দাবি, ঋতব্রতের বক্তব্য থেকে জানা গিয়েছে, নম্রতার সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক দেড় বছরের কম নয়। অর্থাৎ একই সময়ে তিনি দুই তরুণীর সঙ্গে সম্পর্ক চালিয়ে যাচ্ছিলেন।

মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ আইনজীবীকে নিয়ে ভবানী ভবনে সিআইডির দপ্তরে ঢোকেন ঋতব্রত। টানা প্রায় সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন তদন্তকারীরা। সন্ধ্যা ৬টা নাগাদ তিনি বেরিয়ে আসেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে ঋতব্রত বলেন, গোটা ঘটনার পিছনে রাজনৈতিক বিষয় রয়েছে। এটা একটা ষড়যন্ত্রের অংশ। আমি চাই, প্রকৃত ও পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হোক।