Tuesday, April 23, 2024
দেশ

গর্ভে কন্যাভ্রূণ থাকায় গৃহবধূকে পিটিয়ে খুন বীরভূমে

বীরভূম: বীরভূমের ইলামবাজারে গর্ভে কন্যাভ্রূণ থাকায় গৃহবধূকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে। কন্যাভ্রূণ জানার পরই ওই গৃহবধূর পেটে লাথি মারা হয় বলে দাবি বাপের বাড়ির আত্মীয়দের। পাশাপাশি, খুনকে আত্মহত্যা দেখাতে দেহ ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ। মৃতার নাম রুমা সেন। স্বামী বিশ্বনাথ নন্দী পেশায় স্বর্ণ ব্যবসায়ী।

পরিবার সূত্রে খবর, কয়েকদিন আগেই স্বামী এবং ননদ অন্তঃসত্ত্বা ওই গৃহবধূকে নিয়ে গিয়ে আল্টাসোনোগ্রাফি করান। সেখানেই তাঁরা কন্যাভ্রূণের কথা জানতে পারেন বলে দাবি আত্মীয়দের। তাঁদের আরও দাবি, বুধবার বাড়িতে ফোন করে আতঙ্কে রয়েছে বলে জানিয়েছিলেন রুমা। ওই দিনই তাঁর মৃত্যু হয়। মৃত রুমাকে ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে আশা হয় বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে, সেখানে দেখা যায় তার গর্ভে কন্যা সন্তান আছে, মায়ের সঙ্গে তারও মৃত্যু ঘটেছে।

ঘটনায় স্বামী এবং ননদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শ্বশুর ও শাশুড়ি পলাতক। এবং কোন নার্সিংহোমে হয়েছে এই আল্টাসোনোগ্রাফি হয়েছিল, তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, লিঙ্গ সমতা ও উন্নয়ন সংক্রান্ত বিশ্বব্যাংকের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, ভারতে গত দুই দশক ধরে বছরে প্রায় আড়াই লাখ কন্যাভ্রূণ হত্যা করা হয়৷ ভূমিষ্ঠ হবার আগে থেকেই লিঙ্গ বৈষম্যের শিকার হতে হয় মেয়েদের৷ দেশে পুত্রসন্তানের অনুপাতে কন্যাসন্তানের সংখ্যা যথাযথ রাখার জন্য সরকার আইন করে গর্ভস্থ ভ্রূণের লিঙ্গ নির্ধারণ বন্ধ করেছে বেশ কয়েক বছর হল। কিন্তু তা সত্তেও চোরাগোপ্তা গর্ভস্থ ভ্রূণের লিঙ্গ নির্ধারণ এবং কন্যাভ্রূণ হত্যা হয়েই চলেছে।