Friday, April 12, 2024
দেশ

শরিয়া আইন বাতিলের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করলেন মুসলিম মহিলা

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: শরিয়া আইন মহিলাদের প্রতি বৈষম্যমূলক এমন অভিযোগ তুলে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হলেন বুশারা আলী নামে একজন মুসলিম মহিলা। দেশের শীর্ষ আদালতে ওই মহিলা অভিযোগ করেছেন, শরিয়া আইনে মহিলাদের পিতার সম্পত্তিতে নায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়।

শুক্রবার (১৭ মার্চ) বিচারপতি কৃষ্ণা মুরারি ও সঞ্জয় করোলের ডিভিশন বেঞ্চে মামলা দায়ের করেছেন বুশারা। আলীকে তার ভাইদের তুলনায় তার পৈতৃক সম্পত্তির মাত্র 1/2 ভাগ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল। তাকে তার পৈতৃক সম্পত্তিতে 7/152 অধিকার দেওয়া হয়েছিল এবং তার ভাইদের 14/152 অধিকার দেওয়া হয়েছিল।

দশকের পর দশক ইসলামি আইনের অধীনে তার প্রতি বৈষম্যের প্রতিকারের আশায় সর্বোচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন বুশারা। শরীয়তের অধীনে একজন নারী পুরুষের সমান সম্পত্তির অধিকার পান না। এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে আবেদনকারী বলেন, “সংবিধান থাকা সত্ত্বেও, মুসলিম নারীরা বৈষম্যের শিকার হচ্ছে শরীয়ত আইনের কারণে।”

আলী ভারতীয় সংবিধানের অনুচ্ছেদ 15 (বৈষম্যের নিষেধাজ্ঞা) লঙ্ঘনের জন্য মুসলিম ব্যক্তিগত আইন (শরীয়ত) আবেদন আইন, 1937 এর ধারা 2 কে চ্যালেঞ্জ করেছেন।

মুসলিম ব্যক্তিগত আইনের বিতর্কিত ধারায় বলা হয়েছে- “বিপরীতভাবে কোন প্রথা বা ব্যবহার সত্ত্বেও, সমস্ত প্রশ্নে (কৃষি জমি সম্পর্কিত প্রশ্নগুলি সংরক্ষণ করুন) অন্তভুক্ত উত্তরাধিকার, মহিলাদের বিশেষ সম্পত্তি, যার মধ্যে ব্যক্তিগত সম্পত্তি উত্তরাধিকারসূত্রে প্রাপ্ত বা চুক্তি বা উপহারের অধীনে প্রাপ্ত বা ব্যক্তিগত আইনের অন্য কোনও বিধান, বিবাহ, তালাক, ইলা, জিহার, লিয়ান, খুলা ও মুবারআত, ভরণ-পোষণ, মোহরানা, অভিভাবকত্ব, উপহার, ট্রাস্ট এবং ট্রাস্টের সম্পত্তি এবং ওয়াকফ (দাতব্য ও দাতব্য প্রতিষ্ঠান এবং দাতব্য ও ধর্মীয় অনুদান ব্যতীত) বিবাহ বিলুপ্তির সিদ্ধান্তের নিয়ম। যে সকল ক্ষেত্রে দলগুলো মুসলিম হয় মুসলিম পার্সোনাল ল (শরীয়ত) হবে।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকার দেশজুড়ে অভিন্ন দেওয়ানি বিধি তথা এক দেশ এক আইন চালু করার কথা ভাবছে।