Thursday, April 25, 2024
দেশ

ধর্মীয়স্থানে লাউড স্পিকারের ব্যবহার নিষিদ্ধ করল যোগী সরকার

লখনউ: রাজ্যের সব ধর্মীয়স্থানে লাউড স্পিকারের ব্যাবহার নিষিদ্ধ করল উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ সরকার। রবিবার এক নির্দেশিকা জারি করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, রাজ্যের যে সব ধর্মস্থানে লাউড স্পিকার ব্যবহার করা হয়, তা আগামী ২০ জানুয়ারির মধ্যে খুলে ফেলতে হবে। হাইকোর্টের আদেশ পালন করার জন্য সব জেলার পুলিশ আধিকারিকদেরও নির্দেশ পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই রাজ্য পুলিশ এই নির্দেশকে কার্যকর করতে নেমে পড়েছে।

ধর্মীয়স্থানে লাউড স্পিকার ব্যবহারের ফলে শব্দদূষণ হচ্ছে, এই অভিযোগে এলাহাবাদ হাইকোর্টের লখনউ বেঞ্চে একটি জনস্বার্থ মামলা করেন এম এল যাদব নামে এক আইনজীবী। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ২০ ডিসেম্বর ২০১৭ তে এলাহাবাদ হাইকোর্ট উত্তরপ্রদেশ সরকারের কাছে প্রশ্ন করে জানতে চেয়েছিল, কার নির্দেশে ধর্মীয়স্থানে লাউড স্পিকার বাজানো হচ্ছে ?

এলাহাবাদ হাই কোর্টের একটি নির্দেশকে মান্যতা দিতে গিয়েই যোগী আদিত্যনাথ সরকারের এই কড়া পদক্ষেপ। রাজ্যের শব্দদূষণ সংক্রান্ত আইন মোতাবেক এলাহাবাদ হাই কোর্ট রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দেয় সব ধর্মীয়স্থান সমস্ত বেআইনি লাউডস্পিকার খুলে ফেলতে হবে। পাবলিক প্লেসে যেখানে প্রয়োজনীয় অনুমতি ছাড়া লাউডস্পিকার লাগানো হয়েছে, খুলে ফেলতে হবে সেগুলিও।

যদিও কোর্ট জানিয়েছে, সার্বজনীন জায়গা গুলোতে মাইক বাজানোর জন্য প্রশাসনের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে মাইক বাজানো যাবে, তবে সম্পূর্ণ নিয়মের মধ্যে থেকেই মাইক বাজাতে হবে। কোর্ট আরও জানায়, শব্দ দূষণের নিয়ম ২০০০ অনুসারে রাত ৬ টা থেকে সকাল ১০ টা পর্যন্ত মাইক বাজানো যাবেনা।

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যসচিব অরবিন্দ কুমার সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জানিয়েছেন, ‘বৈধ লাউডস্পিকারের ক্ষেত্রেও জারি হচ্ছে নয়া নির্দেশিকা। পাবলিক প্লেসে স্বাভাবিকের চেয়ে ১০ ডেসিবেলের উপর মাইক বাজানো যাবে না। কারও বাড়ি বা ব্যক্তিগত মালিকানাধীন জমিতে স্বাভাবিকের চেয়ে ৫ ডেসিবেলের উপর শব্দ করা যাবে না।’