Tuesday, April 23, 2024
দেশ

‘রক্তের দাগ লাগবে’ বলে আহত ২ তরুণকে হাসপাতালে নেয়নি পুলিশ! ফলে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু

লখনউ: ‘গাড়িতে রক্তের দাগ লাগবে’ বলে দুর্ঘটনায় আহত হয়ে রাস্তায় পড়ে থাকা দুই তরুণকে উদ্ধার করেনি পুলিশ। ফলে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়েছে। অমানবিক এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুরে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ, দুই তরুণ রাস্তায় নিস্তেজ হয়ে পড়েছিল। রক্তে ভেসে যাচ্ছিল তাদের শরীর। পাশেই পড়েছিল তাদের মোটরসাইকেলটি।

এ অবস্থা থেকে ঘটনাস্থলে জড়ো হওয়া লোকজন দুই তরুণকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার চেষ্টা করেন। এ জন্য তারা রাস্তায় গাড়ি থামানোর জন্য মিনতি করেন। কিন্তু কোনো গাড়িই আহত তরুণদের হাসপাতালে নিতে রাজি হয়নি। এর পর পুলিশকে ফোন করলে ঘটনাস্থলে একটি টহল গাড়ি আসে। তখন আহত তরুণদের পুলিশের গাড়িতে তুলে হাসপাতালে নেয়ার চেষ্টা করে উপস্থিত লোকজন।

কিন্তু পুলিশ জানিয়ে দেয়, আহত তরুণদের গাড়িতে তোলা যাবে না। কারণ এতে গাড়িতে রক্তের দাগ লেগে যাবে। রাতে টহল দিতে অসুবিধা হবে। তখন পুলিশকে অনুরোধ করে বলা হয়, আহত তরুণদের হাসপাতালে পৌঁছানোর পর গাড়ি ধুয়ে নেয়া যাবে। কিন্তু এ অনুরোধেও সাড়া দেয়নি পুলিশ। এর মধ্যে ঘটনাস্থলেই দুই তরুণ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, অর্পিত ও সানি যখন বাইকে চেপে বাড়ি ফিরছিল। তখন রাস্তার পাশে লাইট পোস্টের সঙ্গে তাদের বাইকের ধাক্কা লাগে। দুর্ঘটনায় অর্পিত ও সানি ছিটকে গিয়ে নর্দমায় পড়ে গুরুতর জখম হয়।

DIG (শাহারানপুর রেঞ্জ) সুনীল এমানুয়েল বলেন, “এই ঘটনায় অভিযুক্ত তিন পুলিশ কর্মীকে চিহ্নিত করা গেছে। তাঁরা হলেন হেড কনস্টেবল ইন্দরপাল সিং, কনস্টেবল পঙ্কজ কুমার এবং মনোজ কুমার। তাঁদের সাসপেন্ড করে বিভাগীয় তদন্ত শুরু করা হয়েছে।”

অর্পিতের বাবা রাকেশ খুরানা বলেন, “ওই পুলিশ কর্মীরা যদি সামান্য মানবিকতার পরিচয় দিতেন, তবে আমার ছেলে বেঁচে যেত।”

উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুরের এই অমানবিক ঘটনাটি ভিডিও করে রেখেছেন সেখানে থাকা একজন। ভিডিওটি ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে যাওয়ার পর পুলিশের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।