Thursday, April 25, 2024
আন্তর্জাতিক

বাংলাদেশে ‘ব্লু হোয়েল’ গেমের হানায় আত্মঘাতী অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী অপূর্বা বর্ধন

ঢাকা: বিশ্বের বিভিন্ন দেশের পর এবার বাংলাদেশে হানা দিলো মরণঘাতি ‘ব্লু হোয়েল’ গেম। গেমের ফাঁদে পড়ে ব্লু হোয়েলের নির্দেশে আত্মহত্যা করেছে ১৩ বছর বয়সী অষ্টম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী অপূর্বা বর্ধন স্বর্ণা।

বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার নিউ মার্কেট থানা এলাকার সেট্রাল রোডের ৪৪ নম্বর বাসায় নিজের পড়ার কক্ষে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় ওই শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সে অ্যাডভোকেট সুব্রত বর্মণের মেয়ে এবং ফার্মগেটের হলিক্রস স্কুলের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, স্বর্ণা বিদ্যালয়ের ফার্স্ট গার্ল হিসেবে পরিচিত ছিল। ওয়াইডব্লিউসিএ হাইয়ার সেকেন্ডারি গার্লস স্কুলে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত সম্মিলিত মেধা তালিকায় তার অবস্থান ছিল প্রথম।

মৃত কিশোরীর বাবা অ্যাডভোকেট সুব্রত বর্মনের সন্দেহ, ইন্টারনেটভিত্তিক ডেথ গেমস ব্লু হোয়েলের কবলে পড়ে তার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। তার মেয়ের লিখে যাওয়া একটা চিরকূট থেকে এমন তথ্য মিলেছে বলেও তিনি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন। ব্লু হোয়েল গেমের শর্ত অনুযায়ী আত্মহত্যার আগে মেয়েটি একটি সুইসাইড নোট লিখে গিয়েছে। যেখানে লেখা রয়েছে, আমার আত্মহত্যার জন্য কেউ দায়ী নয়। এমনকি গেমসের নির্দেশনা মতো একটি হাসির চিহ্ন আঁকা ছিল।

কিশোরীর বাবা সুব্রত বর্মন বলেন, স্বর্ণা কয়েক বছর ধরে কম্পিউটার ও এনড্রয়েড মোবাইল ব্যবহার করছিল। বহু গল্প, রচনাসহ বিভিন্ন বিষয় ডাউনলোড করে পড়তো। ব্যবহার করতো ফেসবুক। কিছুদিন আগে আমাদের মনে সন্দেহ জাগে। কারণ তার মোবাইলে হাত দিলে সে অভিমান করতো।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে রাশিয়ায় তৈরি সোশ্যাল মিডিয়াভিত্তিক ডিপওয়ে গেম ‘দ্য ব্লু হুয়াল চ্যালেঞ্জ’ এ আসক্ত হয়ে সারা বিশ্বে ১০০ জনেও বেশি মানুষ আত্মহত্যা করেছে।

মরণঘাতি ‘ব্লু হোয়েল’ গেমের কবল থেকে আপনার সন্তানকে বাঁচাতে সন্তানরা অনলাইনে কী করছে, সেদিকে আপনাকে গভীর মনোযোগ দিতে হবে।