Tuesday, May 21, 2024
দেশ

বিহারের কিষাণগঞ্জে ২টি মন্দিরে অজ্ঞাত দুষ্কৃতীদের আগুন

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: বিহারের কিষাণগঞ্জে দুটি মন্দিরে আগুন দেওয়া হয়েছে এবং দুটি মন্দিরে প্রতিমা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কিষাণগঞ্জ জেলার কোচধামন ব্লকের বাগলবাড়ি পঞ্চায়েতের মাস্তান চকে ১২ মার্চ ভোর ৩টার দিকে একটি দুর্গা মন্দির ও একটি হনুমান মন্দির ধ্বংস করা হয়। আগুনে আশপাশের দোকানগুলোও পুড়ে গেছে। এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশের একটি দল। পুলিশের সহযোগিতায় গ্রামবাসী আগুন নেভায়। স্পর্শকাতর পরিস্থিতি সামাল দিতে বিভিন্ন স্থানে পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেট একসঙ্গে মোতায়েন করা হয়েছে।

আগুনে উভয় মন্দিরের মূর্তি, একটি শিবলিঙ্গ ও অন্যান্য মূর্তি পুড়ে গেছে। অগ্নিকাণ্ডের কারণ এখনও জানা না গেলেও, স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন যে দুষ্কৃতকারীরা হিন্দু মন্দিরে আগুন দিয়েছে। তবে পুলিশ তা অস্বীকার করে বলেছে, এটি একটি দুর্ঘটনা।

পুলিশ একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে এবং একে ‘দুর্ঘটনামূলক আগুন’ বলে অভিহিত করেছে। তবে স্থানীয়রা এই সংস্করণটি গ্রহণ করতে অস্বীকার করছে এবং মামলায় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে প্রতিবাদ জানিয়েছে।

ঘটনার পর স্থানীয় হিন্দুরা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে কিষাণগঞ্জ-বাহাদুরগঞ্জ প্রধান সড়ক অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিক্ষোভকারীদের সকাল ১০টার মধ্যে অবরোধ শেষ করতে রাজি করাতে সক্ষম হন।

ধর্মঘটে বসে হিন্দু সংগঠন ও তাদের সদস্যরা। বিজেপির বেশ কয়েকজন রাজনীতিবিদও বিক্ষোভের জায়গায় এসে যোগ দেন। বিক্ষোভকারীরা মন্দিরের চারদিকে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনের আহ্বান জানিয়েছিল, পাশাপাশি মন্দিরগুলির পুনর্গঠন এবং সরকার কর্তৃক প্রতিমা পুনঃস্থাপনের দাবি জানিয়েছিল। জনসাধারণের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মন্দির পুনর্নির্মাণের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইট ও অন্যান্য নির্মাণ সামগ্রী আনা হয়।

তথ্যসূত্র: OP India