Thursday, April 25, 2024
আন্তর্জাতিক

টানা সাতবার ফোর্বসের ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় শীর্ষে অ্যাঞ্জেলা মেরকেল

যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত সাময়িকী ফোর্বস’র তৈরি করা ২০১৭ সালের ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় টানা ৭ বারের মতো আবারও ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। এই নিয়ে ১২ বার তালিকায় শীর্ষে উঠলেন তিনি।

স্থানীয় সময় বুধবার এই তালিকা প্রকাশ করে ফোর্বস।

তালিকায় গতবার দুই নম্বরে থাকা সাবেক মার্কিন ফার্স্ট লেডি হিলারি ক্লিনটন নির্বাচনে হেরে ৬৫তম স্থানে নেমে গেছেন। অন্যদিকে, দুই নম্বরে উঠে এসেছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে।

সাম্প্রতিক জাতীয় নির্বাচনে টানা চতুর্থ মেয়াদের জন্য জয় পেলেও আগের চেয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারায় মেরকেলের দল। কিন্তু তারপরও বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারীর জায়গায় রয়ে গেছেন ৬৩ বছর বয়সী মেরকেল।

পর্যবেক্ষকদের মতে, মেরকেলের এই অবস্থান ধরে রেখেছে—শরণার্থী সমস্যা, ইউরোপের অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলা, ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ বা ব্রেক্সিট ইস্যুতে আঞ্চলিক জোটটির ঐক্য সংহত রাখতে পদক্ষেপ, জার্মান অর্থনীতি মজবুতিকরণসহ বিভিন্ন বিষয়ে তার দৃঢ়চেতা ও ফলদায়ক ভূমিকা।

৩২তম স্থানে ভারতের অর্থনীতিবিদ ও আইসিআইসিআই ব্যাংকের সিইও চন্দ কোচার, ৫৭তম স্থানে ভারতের তথ্যপ্রযুক্তিবিদ এবং আইটি সেবাদাতা বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান এইচসিএল এন্টারপ্রাইজের সিইও ও নির্বাহী পরিচালক রোশনি নদর মালহোত্রা, ৭১তম স্থানে ভারতের জৈবপ্রযুক্তি বিষয়ক কোম্পানি বায়োকনের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) কিরণ মজুমদার-শাও, ৯২তম স্থানে ভারতের হিন্দুস্থান টাইমস গ্রুপের সম্পাদকীয় পরিচালক ও চেয়ারপারসন শোবহানা ভারতীয়া এবং ৯৭তম স্থানে রয়েছেন সাবেক বিশ্বসুন্দরী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।

বাংলাদেশের তিন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩০তম স্থানে রয়েছেন। ৩৩তম অবস্থানে রয়েছেন মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিল ও শান্তিতে নোবেলজয়ী অং সান সু চি।

এছাড়া, তালিকায় ১৬তম অবস্থানে চিলির প্রেসিডেন্ট মিশেলে বাচলেট, ১৯তম অবস্থানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কন্যা ইভাঙ্কা ট্রাম্প, ২১তম স্থানে মার্কিন জনপ্রিয় গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব অপরাহ উইনফ্রে, ২৬তম স্থানে ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ, ৬৫তম স্থানে যুক্তরাষ্ট্রের গত নির্বাচনের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন, ৬৯তম স্থানে ফেসবুক সিইও মার্ক জুকারবার্গ-পত্নী এবং শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ প্রিসিলা চ্যান, ৭৯তম স্থানে মার্কিন গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব আরিয়ানা হাফিংটন, ৮৮তম স্থানে যুক্তরাজ্যের বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় লেখিকা জে কে রাউলিং।