Thursday, May 30, 2024
দেশ

কমল মাওলা মসজিদ নাকি সরস্বতীর মন্দির? এএসআইকে সমীক্ষার নির্দেশ আদালতের

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ইতিমধ্যেই অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ করা হয়েছে। এবার বারাণসির জ্ঞানবাপী মসজিদ নিয়ে আদালতে লড়াই চলছে। এর মধ্যে এবার মধ্যপ্রদেশের একটি স্থাপনা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। মুসলিমদের দাবি, ওই স্থাপনাটি কমল মাওলা মসজিদ। অন্যদিকে হিন্দুরা বলছে, এটি সরস্বতীর মন্দির। মধ্যপ্রদেশের ধার এলাকার ভোজশালায় এই স্থাপনা অবস্থিত।

স্থাপনাটি সরস্বতী মন্দির দাবি করে একটি পিটিশন দায়ের করে হিন্দু গোষ্ঠী। সোমবার মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্ট এই মামলার রায় দিয়েছে‌। জানিয়েছে, বিতর্কিত ওই স্থাপনায় সমীক্ষা চালাবে ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগ এএসআই।

সমীক্ষায় বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। কার্বন ডেটিং, রাডার সিস্টেম থাকবে।

হিন্দু ফ্রন্টের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্ট এই রায় দিয়েছে। বিচারপতি এস এ ধর্মাধিকারী এবং দেব নারায়ণ মিশ্রের বেঞ্চ বলেছেন, “সমীক্ষা সম্পন্ন করুন। ফটো এবং ভিডিও তৈরি করতে হবে। পরবর্তী শুনানির ২৯ এপ্রিলের আগে আদালতে রিপোর্ট জমা দিতে হবে।”

মহাপরিচালক বা অতিরিক্ত মহাপরিচালকের নেতৃত্বে এএসআই-এর কমপক্ষে পাঁচজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার একটি বিশেষজ্ঞ কমিটির নেতৃত্বে জরিপটি পরিচালনা করবে। ছয় সপ্তাহের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

হিন্দু পক্ষের দাবি, মন্দির কমপ্লেক্সটি ছিল রাজা ভোজা (1000-1055 খ্রিস্টাব্দ) দ্বারা নির্মিত একটি বিখ্যাত কলেজের অংশ। কলেজটি ভোজশালা (ভোজসভা হল) নামে পরিচিত হয়েছিল, যেখানে সারা দেশ থেকে শিক্ষার্থীরা জ্ঞানের ভোজের জন্য আসত। মুসলিম শাসনামলে স্থাপনাটিকে মসজিদে রূপান্তর করা হয়। দেবী সরস্বতীর ছবিটি এখন লন্ডনের একটি জাদুঘরে রয়েছে।