Tuesday, April 23, 2024
দেশ

সিবলের আর্জি খারিজ, রামমন্দির-বাবরি মসজিদ বিতর্কের শুনানি ৮ ফেব্রুয়ারি

নিউদিল্লি: রামমন্দির-বাবরি মসজিদ বিতর্কে শুনানির দিন পিছিয়ে আগামী বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি ধার্য করল সুপ্রিম কোর্ট। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি অশোক ভূষণ ও বিচারপতি এস এ নাজিরকে নিয়ে গঠিত সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চ সব পক্ষের আইনজীবীদের একসঙ্গে বসে যাবতীয় প্রয়োজনীয় নথিপত্র অনুবাদ করে শীর্ষ আদালতের রেজিস্ট্রির কাছে ক্রমানুসারে সাজিয়ে পেশ করতে বলেছে।

সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের তরফে আইনজীবী কপিল সিবলে আদালতে বলেন, প্রয়োজনীয় সাড়ে ১৯ হাজার দলিল-দস্তাবেজের সব পেশ করা হয়নি, যার মধ্যে পুরাতাত্ত্বিক রিপোর্টও আছে। এছাড়া অযোধ্যার এই মামলা নিয়ে এখন যা পরিস্থিতি, তাতে মামলার শুনানি করে আদালত যে রায়-ই দিক, তার ব্যাপক রাজনৈতিক, সামাজিক প্রতিক্রিয়া হতে পারে। তাই লোকসভা নির্বাচন পর্ব মিটে যাওয়ার পর শুনানি হোক। কিন্তু তাঁর আবেদন নাকচ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

অন্যদিকে রাম জন্মভূমির পক্ষে আইনজীবী হরিশ সালভে বিরোধিতা করে সওয়াল করেন যে, আদালতের বাইরের রাজনীতি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের মাথা ঘামানোর কারণ নেই। সুন্নি বোর্ডের আর্জি খারিজ করে পরবর্তী শুনানি আগামী বছরের ৮ই ফেব্রুয়ারি ধার্য করে শীর্ষ আদালত। উত্তর প্রদেশ সরকারের পক্ষে অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, আরবি ও ফার্সিতে লেখা মূল নথিপত্র ইংরেজি এবং অন্যান্য ভাষায় অনুবাদসহ দাখিল করা হয়েছে। আর তাতে পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন হিসেবে দেখানো হয় যে, ১৫২৮ সালে মুঘল সুলতান বাবরের শাসনকালে বাবরি মসজিদ তৈরির আগে ঐ জায়গায় একটি হিন্দু মন্দির ছিল।

অযোধ্যার সাধারণ মানুষ বলছে, এটাই রামমন্দির নির্মাণের সুবর্ণ সুযোগ। উত্তর প্রদেশে আছে যোগী আদিত্য নাথের বিজেপি সরকার, অন্যদিকে কেন্দ্রে আছে মোদীর বিজেপি সরকার।

তাই বাবরি মসজিদ ভাঙার ২৫ বছর পর যদি মন্দির নির্মাণ না হয়, তাহলে দেশের সামাজিক-রাজনৈতিক ছবির কলঙ্কদাগ মুছে ফেলা যাবে না এবং পরবর্তীতে বিজেপির মাথা তোলা মুশকিল হবে। কাজেই এই সুযোগ হাতছাড়া হয়ে গেলে মন্দির নির্মাণের আশা খুবই কম।