Friday, July 12, 2024
দেশ

আসাম: ফেসবুকে হিন্দু সেজে নাবালিকাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে অপহরণ, গ্রেফতার সাহিদুল ইসলাম

কলকাতা ট্রিবিউন ডেস্ক: আসামের গোসাইগাঁওয়ে লাভ জিহাদ। সাহিদুল ইসলাম ফেসবুকের মাধ্যমে নাবালিকা হিন্দু তরুণীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বলে অভিযোগ। এরপর সে তার দুই বন্ধুর সহায়তায় মেয়েটিকে অপহরণ করে পশ্চিমবঙ্গে পালানোর চেষ্টা করে। সাহিদুল ইসলাম ও তার দুই বন্ধু মিনহাজ আলী ও সাইফুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

জানা গেছে, শ্রীরামপুর থানার কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীরা আসাম-পশ্চিমবঙ্গ সীমান্তের কাছে নাকা চেকিং পয়েন্টে একটি গাড়ি থামায়। জিজ্ঞাসাবাদে যুবকরা জানায়, তারা পশ্চিমবঙ্গের আলিপুরদুয়ার শহরে যাচ্ছিল।গাড়িতে তাদের সঙ্গে থাকা নাবালিকাকে দেখে পুলিশের সন্দেহ হয়। এরপর পুলিশ তাদের থানায় নিয়ে যায়। 

জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েটি জানায়, সে গোসাইগাঁওয়ের বাসিন্দা। ফেসবুকের মাধ্যমে মৃণাল রায়ের সংস্পর্শে এসে প্রেমে পড়েন তিনি। তাই তাকে বিয়ে করার জন্য সে তার বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে। 

তখন পুলিশ দেখে যে নামটি ব্যবহার করা হয়েছে তা ভুয়া। তার আসল নাম সাহিদুল ইসলাম। ভুয়া হিন্দু নাম ‘মৃণাল রায়’ দেখিয়ে নাবালিকা হিন্দু মেয়েকে প্রেমের ফাঁদে ফেলেন সাহিদুল ইসলাম। এরপর সাহিদুল ইসলাম তার দুই বন্ধু মিনহাজ আলী ও সাইফুল ইসলামকে নিয়ে মেয়েটিকে পশ্চিমবঙ্গে পাচারের চেষ্টা করা হয়। 

পুলিশ জানিয়েছে, মেয়েটিকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে পাচার করা হয় এবং ছেলেরা পাচারকারী চক্রের সদস্য। পরে শ্রীরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোসাইগাঁও পুলিশকে খবর দিয়ে তাদের হস্তান্তর করেন। গোসাইগাঁও থানা পুলিশ ওই তিন মুসলিম যুবককে আটক করে অপহরণ ও মানব পাচারের মামলা করেছে।