Monday, June 24, 2024
দেশ

৩৬ বছর পাকিস্তানের জেলে কাটিয়ে দেশে ফিরলেন গজানন্দ শর্মা

জয়পুর: ৩৬ বছর আগে নিখোঁজ হয়েছিলেন জয়পুরের বাসিন্দা গজানন্দ শর্মা। বয়স তখন ছিল ৩২। থানা-পুলিশ কী করেনি গজানন্দের পরিবার, কিন্তু কিছুতেই গজানন্দের খোঁজ মেলেনি। ১৯৮২ সাল থেকে নিখোঁজ ছিলেন গজানন্দ। ছেলে মুকেশের বয়স তখন ১২। এখন সেই মুকেশ তিন সন্তানের বাবা। তিন দশক নিখোঁজ থাকার পরে অবশেষে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে দেশে ফিরেছেন তিনি। এতদিন পাকিস্তানের লাহোরের সেন্ট্রাল জেলে বন্দি ছিলেন গজানন্দ শর্মা।

গজানন্দের তখন ৩২ বছর বয়স যখন তিনি নিখোঁজ হন। এখন ৬৮ বছরের বৃদ্ধ। ১৩ অাগস্ট, আটারি-ওয়াঘা সীমান্তে এসে পৌঁছন পাকিস্তান জেল থেকে মুক্ত ২৮ ভারতীয়। সেই ২৮ জনের মধ্যে গজানন্দ। এদিন যখন সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে ঢুকছিলেন, সেই সময়টা তাঁর জীবনে এক অন্য মাত্রা যোগ করেছে। পরনে পাকিস্তানি পাঠানি, হাতে সাদা প্লাস্টিক হাতে গজানন্দ ছিলেন বেশ নির্বিকার। হার না মানা এক গল্পের নায়ক এই গজানন্দ।

ছেলেমেয়েদের নিয়ে থাকেন গজানন্দ শর্মার স্ত্রী মাখনি দেবী। মুকেশের কাছে প্রথম যেদিন লাহোর জেলের চিঠিটি এসে পৌঁয়য় তাঁরা বিশ্বাস করতে পারেননি গজানন্দ বেঁচে আছেন। সঙ্গে সঙ্গে সমাদ থানায় কাগজপত্র নিয়ে পৌঁছে যায় পরিবার। মাখনি দেবীর এখন একটাই ইচ্ছে মৃত্যুর আগে যেন একবার স্বামীর সঙ্গে দেখা করতে পারেন। এদিন তাঁর আশা পূর্ণ হয়েছে। ভারতের ৭২তম স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে গজানন্দ পাকিস্থান থেকে থেকে ঘরে ফিরে এসেছেন। জয়পুরের গজানন্দের বাড়ি সেজে উঠেছে। ফিরে এসেছেন বাড়ির কর্তা, মালিক, পরিবার প্রধান। বলতে বলতে কেঁদে ফেললেন গজানন্দের স্ত্রী মাখনি দেবী।