Thursday, April 25, 2024
দেশ

ঐতিহ্যবাহী শিব মন্দির ভাঙ্গা নিয়ে তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনাতে ভেঙ্গে ফেলা হল অনেক পুরনো ঐতিহ্যবাহী একটি শিব মন্দির। কারণ হিসেবে জানা গেছে, রাস্তা তৈরির করার জন্য প্রায় ৫০০ বছরের এই প্রাচীন শিব মন্দিরটি ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। অনেকে দাবি বলেছেন, মন্দিরটি রক্ষা করেও রাস্তা নির্মান করা যেত। এইভাবে একের পর এক করে, সব শেষ হয়ে যাবে হিন্দুদের প্রাচীন স্থাপত্য গুলি।

গত  ৯/০২/২০১৮ তারিখে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনাতে ভেঙ্গে ফেলা হল অনেক পুরনো ঐতিহ্যবাহী শিব মন্দির PWD দ্বারা। অনেকে বলেছেন, এটি যদি অন্য ধর্মের কোন প্রাচীন নিদর্শন বা স্থাপত্য হত তাহলে ভাঙ্গার সাহস পেতো না! হাজার হাজার লোক ছুটে যেত তাঁদের প্রাচীন ঐতিহ্যকে রক্ষা করার জন্য।

অপরূপা রায় তাঁর ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে ঐতিহ্যবাহী শিব মন্দির। চন্দ্রকোনা টাউনের গাছ শিতলার ঐতিহ্যবাহী শিব মন্দির আর দেখা যাবে না। ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে এই মন্দিরটি। কারন রাজ্য সড়ক সম্প্রসারণের জন্য দীর্ঘ টালবাহানার পর অবশেষে ভেঙে ফেলা হচ্ছে চন্দ্রাকোনা টাউনের গাছশীতলার এই শিবের মন্দিরটি। বলছি উন্নয়নের নামে আর কত মন্দির ভাঙ্গা হবে ? জলপাইগুড়ি পর এবার মেদেনীপুর, সবজায়গায় চলছে মন্দির ভাঙ্গা। কিন্তু মন্দিরের জায়গায় যদি মসজিদ থাকতো তাহলেও কি ভাঙ্গতে পারতো ? আছে হিম্মত সরকারের ? সব পার্টি ঝাঁপিয়ে পরতো প্রতিবাদ করতে Votebank বলে কথা। আচ্ছা হিন্দুরা কি ভোট দেয়না ? হিন্দুর ধর্মীয় ভাবাবেগের কি কোনো মূল্য নেই ? এমন চলতে থাকলে একদিন হয়তো কোনো মন্দির থাকবে না । তাই আসুন সবাই মিলে প্রতিবাদ করুন। দিন দিন নতুন যত মসজিদ গঠন হচ্ছে মনে হয় বাংলায় এখন মন্দিরের থেকে মসজিদের সংখ্যাই বেশি।

কার্টুনে বাংলা তাদের ফেসবুক পোস্টে লিখেছে, কখনো —-বাগুইআটির তেঘড়িয়া কাছে একটি রাম মন্দির তৈরি করে ছিল রাম মন্দির কমেটি। বিধাননগর পুরনিগমের বুল্ডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দেয় সেই রাম মন্দির, কখনো রাস্তা তৈরির নাম করে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা তে ভেঙ্গে ফেলা হয় প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী শিব মন্দির।হিন্দুদের ধর্মানুভুতিতে সহজেই বার বার আঘাত দেওয়া যায় কারণ তারা সাত চড়েও রা কড়ে না ,আর রাম জন্মভূমিতে বাবরি মসজিদ ভাঙলে নিন্দের ঝড় ওঠে ।
তার পর হিন্দুরা বড়ই অসহিষ্ণু।