Sunday, April 21, 2024
কলকাতাশিক্ষাঙ্গন

কলকাতা নামকরণের ইতিহাস

কলকাতা ভারতের অন্যতম প্রাচীন একটি শহর এবং পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী। কলকাতা পূর্ব  ভারতের প্রধান বানিজ্যিক, সাংস্কৃতিক ও শিক্ষাকেন্দ্র। জনসংখ্যার বিচারে কলকাতা ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম শহর। নিউদদিল্লী ও মুম্বাইয়ের পরে। বঙ্গোপসাগর থেকে ১৩৮ কিলোমিটার উত্তর দিকে ভাগিরথী (হুগলি) নদীর পূর্ব পাশে অবস্থিত। কলকাতা নামকরণের সঠিক ইতিহাস নিয়ে নানা মতভেদ রয়েছে। তবে কলকাতা নামটি এসেছে “কলিকাতা” নাম থেকে।  কলকাতা নামকরণের পিছনে লোকমুখে প্রচলিত বিভন্ন কথা ঃ-

১।  কথিত আছে যে, শিবের তান্ডব নৃত্যকালে সতীর দেহের একটি অংশ কালীঘাটে পড়েছিল। কালীঘাট মন্দিরটির নামানুসারেই সম্ভবত কলকাতার নামকরন করা হয়েছে।

২। কলিকাতা নামটি খাল ও কাটা (অর্থাৎ খনন করা) শব্দদুটি থেকে উৎপন্ন হয়ে থাকতে পারে।

৩। বাংলা শব্দ কিলকিলা (অর্থাৎ চ্যাপ্টা ভূখন্ড) কথাটি থেকে কলিকাতা নামের উৎপত্তি ।

৪। এই অঞ্চলে কলিচুন ও দাতা (নারকেলের ছোবড়া) প্রচুর উৎপাদিত হতো । সে জন্যেই এই শহরের নাম হয়েছে কলিকাতা ।

৩০০ বছরেরও বেশি পুরনো আমাদের এই প্রিয় কলকাতা । ১৬৯০ খিস্টাব্দে জব চার্নক গোবিন্দপর, সুতানুটি ও কলকাতাকে কেন্দ্র করে কলকাতা নগরির পত্তন করেছিলেন। ১৭৭২ সালে মুর্শিদাবাদ শহর থেকে বাংলার রাজধানি কলকাতার স্থানান্তরিত করা হয়েছিল। ১৯১১ সাল পর্যন্ত কলকাতা ছিল ভারতের সমগ্র ব্রিটিশ-শাসিত অঞ্চলগুলির রাজধানী। কথিত আছে যে, তখনকার দিনে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যে লন্ডনের পরেই কলকাতাকে বৃহত্তম নগরী হিসাবে গন্য করা হতো । ১৯২৩সালে মিউনিসিপ্যাল অ্যাক্টের অধীনে কলকাতা পৌরসংস্থা স্থাপিত হয় । উপনিবেশিক শাসনেকালে কলকাতার ব্রিটিশদের দেওয়া নাম ছিল ক্যালকাটা (Calcutta) । পরবর্তীতে স্বাধীনতা লাভের পরে নবগঠিত রাজ্য পশ্চিমবঙ্গের রাজধানি কলকাতা করা হয় । ২০০১ সালে সরকারি ভাবে এই শহরের নাম পরিবর্তন করে বাংলায় “কলকাতা” এবং ইংরেজিতে “Kolkata” করা হয় । যা এখন বিশ্বের প্রধান নগর গুলোর মধ্যে অন্যতম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *