Tuesday, June 18, 2024
কলকাতা

রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতির জন্য সরাসরি কেন্দ্রকে দায়ী করলেন মমতা

কলকাতা: টানা কয়েকদিন ভারী বর্ষণের জেরে শহর কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এই পরিস্থিতির জন্য সরাসরি কেন্দ্রীয় সরকারকে দায়ী করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি সম্পর্কে মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন করতেই ডিভিসি নিয়ে সবর হন মমতা। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, রাজ্যের সাথে আলোচনা না করেই ডিভিসি তাদের ইচ্ছামতো জল ছাড়ছে। এছাড়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, নদীগুলির নাব্যতা কমে যাওয়ার কারণে জল ধারণ ক্ষমতা কমেছে। যার জন্য ঘনঘন বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হচ্ছে রাজ্যে।

টানা বৃষ্টির জেরে দক্ষিণবঙ্গের হাওড়া হুগলি-সহ একাধিক জায়গায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটালও জলের তলায় রয়েছে। জলের তোড়ে ভেসে গিয়ে মঙ্গলবার হাওড়া উদয়নারায়ণপুরে এক কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। বাড়িঘর জলের নিচে তলিয়ে যাওয়ার কারণে মানুষজন স্কুল প্রতিষ্ঠান এবং ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। বন্যা কবলিত এসব জায়গায় পানীয় জলের সংকট দেখা দিয়েছে।

বুধবার বন্যা পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে খানাকুল পরিদর্শনে যাওয়ার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। প্রথমে ঠিক হয়েছিল হেলিকপ্টারে করে বন্যা পরিস্থিতি দেখতে যাবেন মমতা। কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার কারণে সড়ক পথেই যেতে হয় তাঁকে।

তবে এ বছরই প্রথম নয়, প্রতিবছরই প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে দক্ষিণবঙ্গের একটা বড় অংশ জলের নিচে চলে যায়। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে কাঠগড়ায় তুললেন রাজ্যের সেচ মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র। তাঁর অভিযোগ, কেন্দ্রীয় সরকার নদীর নাব্যতা কমে যাওয়া নিয়ে কোন পদক্ষেপই নিচ্ছে না। যার ফলে প্রতিবছর এই ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে রাজ্যবাসীকে।