Tuesday, July 16, 2024
Latestদেশ

২৬/১১ মুম্বাই হামলা নিয়ে আবেগঘন পোস্ট করলেন বীরু

নয়াদিল্লি: ভয়াবহ মুম্বাই হামলার ১১টা বছর হয়ে গেল। ২০০৮ সালের ২৬ নভেম্বর রক্তাক্ত হয়েছিল বাণিজ্য নগরী মুম্বাই। সেই ঘটনায় কেঁপে উঠেছিল গোটা দেশ। ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গে মুম্বাই পুলিশ, সেনা এবং এনএসজি-র লড়াই চলেছিল প্রাণ হারিয়েছিলেন ১৬৬ জন। আহত হয়েছিলেন ৩০০-রও বেশি।

আজমল কাসভ ছাড়া আর কোনও সন্ত্রাসবাদীই সেদিন জীবিত ফেরেননি। আর এই কাসভকে ধরা গিয়েছিল শুধুমাত্র মুম্বাই পুলিশের অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইনস্পেকটর তুকারাম ওম্বলের জন্য়। তুকারামের আত্মবলিদানের কথা ভোলেননি কেউই। মনে রেখেছেন বীরেন্দ্র শেহওয়াগও।

বীরু টুইটারে লিখেছেন, তুকারাম যে প্রচণ্ড সাহসিকতা ও নিজের উপস্থিত বুদ্ধির পরিচয় দিয়েছিলেন সেদিন, তা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। নিজের জীবন বলিদান দিয়েছিলেন দেশের জন্য়। কোনও পুরস্কার এই মানুষটার মূল্য়ায়ন করতে পারবে না। তুকারামের গর্বিত গোটা দেশ।


জঙ্গিহানার খবর পেয়ে তুকারাম সেরাতে ছুটে যান গিরগাম চৌপট্টিতে। সন্ত্রাসবাদীদের গুলিতে এফোঁড় ওফোঁড় হয়ে গিয়েছিল তুকারামের বুক। তবুও তিনি কাসভকে নিজের দু’হাত দিয়ে বুকের মধ্য়ে শক্ত করে জড়িয়ে রেখেছিলেন। যাতে কাসভ পালিয়ে যেতে না-পারে।

গিরগাম চৌপট্টিতেই তুকারামের আবক্ষ মূতি স্থাপন করা হয়েছে। ২০০৯ সালে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রতিভা পাতিল প্রবল বিক্রম, সাহসিকতায় নিজের জীবন বলিদানের জন্য তুকারামের স্ত্রীর হাতে তুলে দিয়েছিলেন অশোক চক্র পুরস্কার।