Friday, July 12, 2024
দেশ

চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস, অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা

বর্ধমান: চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগ উঠল বর্ধমান শহরের নীলপুরের এক তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে। নির্যাতিতা ওই মহিলার অভিযোগ, এই ঘটনা জানার পরে ওই নেতা তাকে ভয় দেখিয়ে ও জোর করে গর্ভপাত করায়। এসপিকে জানিয়েও সুরাহা হয়নি। বাধ্য হয়ে সিজেএম আদালতে মামলা করেছেন তিনি।

ধর্ষণ, গর্ভপাত ঘটানো, মারধর ও ভীতি প্রদর্শনের ধারায় মামলা রুজু করে তদন্তের জন্য বর্ধমান মহিলা থানার আইসিকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। থানার এক মহিলা অফিসার জানান, আদালতের নির্দেশ এখনও হাতে পাইনি। আদালত নির্দেশ দিলে তা খতিয়ে দেখে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আদালতে ওই মহিলা অভিযোগ জানান, প্রায় বছর তিনেক আগে তার স্বামী কিডনির অসুখে মারা যান। তার ১২ বছরের একটি মেয়েও রয়েছে। নীলপুরেই তিনি থাকেন। সম্প্রতি নীলপুরের মাছ ব্যবসায়ী শুভজিত দাস নামের এক যুবকের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। ওই যুবক নিজেকে তৃণমূল কংগ্রেসের বড় নেতা বলে পরিচয় দেয়। বর্ধমান পুরসভায় চাকরি করে দেওয়ার আশ্বাসও দেয় সে। পরে বেশ কয়েকবার তার সঙ্গে দেখা হয়। কিছুদিন আগে তাঁর বাড়িতে আসে শুভজিত। তাঁকে বিয়ের প্রস্তাব দেয় সে। এরপর চাকরি করে দেওয়ার কথা বলে কয়েকটি কাগজে সে সই করায়। সই-সাবুদ হওয়ার পর তাঁকে সে ধর্ষণ করে। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয় তাকে। মেয়ের দায়িত্ব নেওয়ার কথাও বলে শুভজিত। একাধিক বার ধর্ষণের ফলে তিনি গর্ভবতী হয়ে পড়লে ২৯ সেপ্টেম্বর তাঁকে সে পুরসভার হেলথ সেন্টারে নিয়ে গিয়ে জোর করে গর্ভপাতও করানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

সুস্থ হয়ে ফের বিয়ের প্রস্তাব দিলে ওই যুবক তা এড়িয়ে যেতে থাকে। এমনকি নির্যাতিতা মহিলাকে নানাভাবে হুমকিও দেওয়া হয়েছিল বলে তিনি আদালতে অভিযোগ করেছেন।

অভিযুক্ত শুভজিত দাস জানান, তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে। নীলপুরের এক তৃণমূল নেতার সঙ্গে তার বিরোধের জেরেই তাঁর বিরুদ্ধে এই মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে।

মহিলার আরও অভিযোগ করেন, সমগ্র বিষয়টি পুলিশ সুপারের কাছে জানানো হলেও পুলিশের পক্ষ থেকে কোনও প্রকার ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। সেই কারণেই তিনি আদালতের শরণাপন্ন হয়েছেন।