Wednesday, July 24, 2024
দেশ

বিয়ের সাড়ে পাঁচ মাসেই ডিভোর্স চেয়ে আদালতে লালুপুত্র তেজপ্রতাপ

পাটনা: চলতি বছরের ১২ মে মাসে জাঁকজমকপূর্ণ বিয়ে হয় লালুপ্রসাদ যাদবের বড় ছেলে তেজপ্রতাপ যাদব এবং বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দারোগাপ্রসাদ রাইয়ের নাতনি তথা বিহারের প্রাক্তন মন্ত্রী চন্দ্রিকা রাইয়ের মেয়ে ঐশ্বর্য রাইয়ের। ৬ মাসের মধ্যেই পাটনা দায়রা আদালতে বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য পিটিশন ফাইল করলেন তেজপ্রতাপ।

তেজপ্রতাপ যাদব ও ঐশ্বর্য রাইয়ের সেই জাঁকজমক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিহার সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের হাইপ্রোফাইল ব্যক্তিরা। বিয়ের অনুষ্ঠান নিমন্ত্রিত ছিলেন প্রায় ১০ হাজার অতিথি। বিয়ের অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন বিহারের রাজ্যপাল সত্যপাল মল্লিক থেকে শুরু করে রামবিলাস পাসওয়ান, নীতীশ কুমার, অখিলেশ যাদবের মতো নেতারা। জেলে থাকলেও পাঁচ দিনের প্যারোলে মুক্তি পেয়ে ছেলের বিয়েতে উপস্থিত হয়েছিলেন লালুও। কিন্তু, মাত্র সাড়ে পাঁচ মাসেই ভাঙতে চলেছে বিয়ে।

এদিন পিটিশন দাখিলের পর রাঁচিতে রাজেন্দ্র ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সে ভর্তি বাবা লালুপ্রসাদের সঙ্গে দেখা করেন তেজপ্রতাপ। বিচ্ছেদের কারণ হিসাবে তেজপ্রতাপ পিটিশনে উল্লেখ করেন, স্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়া।

প্রসঙ্গত, রাষ্ট্রীয় জনতা দলের সুপ্রিমো লালুপ্রসাদ যাদব জেলে যাওয়ার পর তাঁর ছোট ছেলে তেজস্বী যাদব দলের ভার নিয়েছেন। এ নিয়ে বড় ছেলে তেজপ্রতাপ যাদব ক্ষুব্ধ। তিনি পরিবারের অন্দরে এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশও করেছিলেন। তার মধ্যে ঐশ্বর্যর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক কীভাবে তলানিতে এসে ঠেকলো, তা নিয়ে ধন্দ তৈরি হয়েছে।