Wednesday, July 24, 2024
দেশ

১৬ বছর জেলে কাটিয়ে গীতা হাতে দেশে ফিরছেন পাক নাগরিক জালাল উদ্দিন

বারাণসী: দীর্ঘ ১৬ বছর বারাণসীর জেলে বন্দি ছিলেন পাকিস্তানি নাগরিক জালাল উদ্দিন। বারাণসীর ক্যান্টনমেন্ট এলাকা থেকে সন্দেহজনক নথি সমেত তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। সাজা ভোগ করে অবশেষে মুক্তি পেয়েছেন তিনি। তবে জেল থেকে বের হওয়ার সময় তিনি যা করলেন তা অনেকেই ভাবেননি। কারাগারের বাইরে পা রাখার সময় তার হাতে ছিল একটি শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা।

বারাণসীর সেন্ট্রাল জেলের সিনিয়র সুপারিনটেনড্যান্ট অম্বরীশ গৌড় জানিয়েছেন, ২০০১ সালে জালাল উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সন্দেহজনক কিছু নথিপত্রসহ ক্যান্টনমেন্টের এয়ার ফোর্স অফিসের কাছ থেকে আটক করা হয়েছিল। তার কাছ থেকে ক্যান্টনমেন্ট এবং বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ জায়গার ম্যাপ উদ্ধার করা হয়েছিল। নাশকতার ছক ছিল, এই অভিযোগেই গ্রেপ্তার হন তিনি। অফিসিয়াল সিক্রেট অ্যাক্ট ও ফরেনার্, অ্যাক্ট অনুযায়ী আদালত পাকিস্তানের নাগরিক জালাল উদ্দিনকে ১৬ বছর কারাদণ্ড দেয় ভারতের আদালত। সাজা কাটিয়ে এবার তিনি ছাড়া পেয়ে হাতে গীতা নিয়ে দেশে ফিরেছেন।

অম্বরিশ গৌড় আরও জানান, দীর্ঘ ১৬ বছরে তাঁর জীবনে অনেক পরিবর্তন এসেছে। গ্রেপ্তারের সময় হাইস্কুল পাশ করেছিল সে। কারাবন্দি অবস্থাতেই ইন্দিরা গান্ধী উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ করেন। জেলে বসেই ইলেকট্রিশিয়ানের কোর্সও করেন। এমনকি জেল ক্রিকেট লীগে তিন বছর আম্পায়ারিংও করেছেন। আর যেদিন মুক্তি পেলেন সেদিন তার হাতে ছিল একটি ভগবত গীতা। হিন্দু ধর্মের এই পবিত্র গ্রন্থই তাঁকে আলোর দিশা দেখিয়েছে বলে জেলের কর্মীরা জানিয়েছেন। পুলিশের একটি বিশেষ দল জালাল উদ্দিনকে অমৃতসর পৌঁছে দেয়। সেখান থেকে ওয়াঘা-আটারি বর্ডার হয়ে নিজের দেশ পাকিস্থানে ফিরবেন তিনি।