Wednesday, July 24, 2024
বিনোদন

লকডাউনে বাড়ি ফিরিয়েছিলেন সোনু সুদ, ধন্যবাদ জানাতে অভিনেতার নামে দোকান খুললেন পরিযায়ী শ্রমিক

ভুবনেশ্বর: করোনা মোলাবিলায় দেশজুড়ে দফায় দফায় লকডাউন জারি করা হয়। যার ফলে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়েন পরিযায়ী শ্রমিকরা। বিপদে পড়া মানুষদের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন সোনু সুদ। দেশের নানা রাজ্যে লকডাউনে আটকে থাকা, দলে দলে ঘরের দিকে পা বাড়ানো পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানোর জন্য বাস, ট্রেন, বিমানের ব্যবস্থা করেন সোনু সুদ।

তেমনই একজন প্রশান্ত কুমার প্রধান। ওড়িশার ৩২ বয়সী প্রশান্ত কেরলে পাইপ লাইনের মিস্ত্রি হিসেবে কাজ করতেন। লকডাউনে কেরলে আটকে পড়েন তিনি। তখনই ‘দেবদূত’ হয়ে এগয়ে আসেন সোনু সুদ। প্রশান্ত-সহ ১৬৭ জনকে বিমানে করে কেরল থেকে বাড়ি ফেরান সোনু সুদ। অভিনেতাকে শ্রদ্ধা জানাতে এবার সোনু সুদের নামে দোকান খুললেন প্রশান্ত কুমার প্রধান।

সোনু সুদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে প্রশান্ত তাঁর দোকানের নাম রেখেছেন, ‘সোনু সুদ ওয়েল্ডিং শপ’। লকডাউনের আগে কেরলে দৈনিক ৭০০ টাকা মজুরিতে কাজ করতেন প্রশান্ত। কিন্তু লকাউনে কাজ হারিয়ে বেকাদায় পড়েন। স্থানীয় প্রশাসনের কাছে বার বার আর্জি জানিয়েও কোনও কাজ হয়নি। একটা সময় বাড়ি ফেরার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন।

প্রশান্ত জানান, সে সময় ‘দেবদূত’-এর মতো তাঁকে বাড়ি ফিরতে সাহায্য সোনু সুদ। সে সহ আরও ১৬৭ জনের জন্য বিশেষ বিমানের ওড়িশায় ফেরার ব্যবস্থা করে দেন সোনু সুদ।

বাড়ি ফিরেই ওয়েল্ডিংয়ের দোকান খুলে ফেলেন তিনি। প্রশান্ত বলেন, যে মানুষটার জন্য বাড়ি ফিরতে পেরেছি তাঁকে কৃতজ্ঞতা জানাব না, তা কখনও হয়। দোকানের নাম রেখেছেন ‘সোনু সুদ ওয়েল্ডিং শপ’। তবে সোনু সুদের কাছে তাঁর নাম ও ছবি ব্যবহারের অনুমতি চেয়েছিলেন প্রশান্ত। সোনুও নির্দ্বিধায় অনুমতি দেন। সঙ্গে শুভেচ্ছাও জানান প্রশান্তকে। সোনু বলেন, ওড়িশা গেলে অবশ্যই ‘সোনু সুদ ওয়েল্ডিং সপ’ ঘুরে আসবেন।