Tuesday, July 16, 2024
রাজ্য​

দেবাঞ্জনের ১০-১২ জন কর্মীর বেতনই ছিলো মাসে ২৫ হাজার টাকা করে

কলকাতা: কসবায় ভুয়ো ভ্যাকসিন ক্যাম্প চালানোর অভিযোগে মঙ্গলবার দেবাঞ্জন দেবকে গ্রেফতার করেছে কলকাতা পুলিশ। আনন্দপুরের মাদুরদহের ২১৮ নম্বর হোসেনপুরের বাসিন্দা দেবাঞ্জন। ২৮ বছরের এই যুবককে নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ। তদন্তে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ৪ বছর ধরে নিজেকে IAS বলে দাবি করে ঘুরে বেড়াতেন দেবাঞ্জন। নীলবাতি, ভারত সরকারের প্রতীক লাগানো গাড়ি ব্যবহার করতেন। ১০ থেকে ১২ জন কর্মী রেখেছিলেন তিনি। তাদের মাসিক বেতন দিতেন ২৫ হাজার টাকা করে। নিজের নিরাপত্তারক্ষীও ছিল। সব মিলিয়ে মাসে খরচ কয়েক লাখ টাকা।

কিন্তু গাঁটের কড়ি খরচ করে IAS সেজে লাভ কি দেবাঞ্জনের? আর তার আয়ের উৎসই বা কি? তা নিয়ে এখনো আঁধারে তদন্তকারীরা। পুলিশের অনুমান, দেবাঞ্জনের মাথার ওপর বড় কারও হাত রয়েছে।

প্রতিবেশীদের দাবি, দেবাঞ্জনের বাবা মনোরঞ্জন দেব আবগারি দফতরের অতিরিক্ত কমিশনার ছিলেন। ছেলের নামে তিনি দেদার মিথ্যে বলে বেড়াতেন। কখনো বলতেন, ছেলে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার পেয়েছে। কখনো দাবি করতেন, কান চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কার পেয়েছে ছেলে। জেনেটিক্সে মাস্টার্স করে এক বছর কলকাতার বাইরে ছিলেন দেবাঞ্জন। ফিরে এসে দাবি করেন IAS হয়েছেন তিনি।

প্রতিবেশীরা জানান, দেবাঞ্জনের বাবা যে ছেলেকে নিয়ে মিথ্যা বলছেন তা বুঝতে পারতাম। কিন্তু হাতে প্রমাণ না থাকায় কিছু বলতে পারতাম না। যাইহোক এবার বুঝতে পারলাম কোন মন্ত্রবলে ১ বছরে একজন IAS হতে পারে।

উল্লেখ্য, ধৃত দেবাঞ্জনকে ২৯ জুন পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।