Sunday, July 21, 2024
দেশ

এবার যোগীর ‘হিন্দুত্ব’ তাসে জয়ের অঙ্কে বিজেপি

জয়পুর: এবার রাজস্থানে ‘হিন্দুত্ব’ নিয়ে দড়ি টানাটানির খেলায় নেমে পড়ল বিজেপি। রাজস্থানে নরেন্দ্র মোদী প্রচার শুরু করেছেন আলোয়ার থেকে, যাঁকে বলা হয় সঙ্ঘ তথা বিজেপি-র হিন্দুত্বের ল্যাবরেটারি। গো রক্ষকদের তাণ্ডব, গণপিটুনিতে মৃত্যুর শুরু তো এই জেলা থেকেই। সেখানে ভাষণ দিয়েই রাম মন্দিরের কথা তুলেছেন মোদী। অর্থাৎ, রাজস্থানে হিন্দুত্বই এখন বিজেপি প্রধান হাতিয়ার।

যোগী পোখরানে এসে বিজেপি কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেছিলেন, গর্বের সঙ্গে বলুন আমরা হিন্দু। এই তো রাহুল গান্ধীকে এখন গোত্র বলতে হচ্ছে। মন্দিরে মন্দিরে যেতে হচ্ছে। এটা আমাদেরই সাফল্য। আমাদের জন্যই তাঁর এই রূপবদল। যেন অন্য কোনও সমস্যা নেই, চাকরি, ফসলের দাম না পাওয়া কৃষক, মূল্যবৃদ্ধি, গরিবদের কঠিন জীবন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবেশ কোনওটাই সমস্যা নয়। রাহুল গান্ধীর গোত্র বা তিনি পৈতে পরেন কি না, তিনি আদৌ হিন্দু কি না, সেটাই আসল প্রশ্ন! আবার সেই রামমন্দির আন্দোলনের সময়ের স্লোগানে ফেরা, গর্ব সে বোলো হাম হিন্দু হ্যায়।

তবে রাজ্যে যোগী ঠিক কতটা জনপ্রিয়? বছর পঁয়ত্রিশের যুবক উপ সরপঞ্চের জবাব, কী বলছেন? যোগীই তো আমাদের হিন্দুত্বের মুখ। রাজস্থান জুড়ে মোট একুশটি সভা করবেন যোগী। যোগী-মোদীর ভরসাতেই তো বসে আছি। কেন বসুন্ধরা? সঙ্গে সঙ্গে একরাশ বিরক্তি নিয়ে মহেশের জবাব, আরে দূর, আমি বিজেপি কর্মী হয়েও বলছি, আমিও চাই বসুন্ধরাজি যেন মুখ্যমন্ত্রী না হন। ওঁর একনায়কতন্ত্র বরদাস্ত করা যাচ্ছে না। মোদীজি একবার খালি বলে দিন, মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন, তা ভোটের পরে ঠিক করা হবে। দেখবেন, রাতারাতি অবস্থা বদলে যাবে।