Wednesday, July 24, 2024
আন্তর্জাতিক

দুর্নীতি মামলায় বাংলাদেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জ়িয়ার ৭ বছরের কারাদণ্ড

ঢাকা: সোমবার জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়াকে ৭ বছর জেল দিয়েছে বাংলাদেশের একটি আদালত এবং ১০ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে। বাকি তিনজন আসামীদের একই শাস্তি দেওয়া হয়েছে। তারা হলেন- খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, তৎকালীন ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান এবং হারিস চৌধুরীর একান্ত সচিব জিয়াউল ইসলাম মুন্না।

এদিকে একাধিক অসুস্থতা নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। রায়ের পর বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এই রায় দেওয়া হয়েছে। খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখাই সরকারের উদ্দেশ্য। এই রায়ের প্রতিবাদে বিএনপি মঙ্গলবার সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

বিএনপির নেত্রী খালেদার বিরুদ্ধে একাধিক দুর্নীতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ আছে। খালেদার অবশ্য দাবি, তাঁর পরিবারকে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে রাখতেই এইসব মিথ্যা অভিযোগে তাঁকে ফাঁসানো হচ্ছে। উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের বাংলাদেশের সাধারণ নির্বাচন বয়কট করেন খালেদা। ক্ষমতা দখল করেন শেখ হাসিনা।

প্রসঙ্গত চলতি বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও আর্থিক জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে তার বড় ছেলে তারেক রহমানসহ পাঁচ আসামিকে ১০ বছরের কারাদণ্ড ও প্রত্যেককে দুই কোটি ১০ লাখ টাকা করে জরিমানা করে রায় ঘোষণা করে আদালত। রায় ঘোষণার পরপরই খালেদাকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়। সেখান থেকে সম্প্রতি তাঁকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে নেয়া হয়েছে। বর্তমানে সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।