Sunday, July 21, 2024
রাজ্য​

হাত থাকতে মুখে কেন, মেরে হাড়গোড় ভেঙে দেব, তৃণমূলকে হুমকি দিলীপের

হুগলি: রবিবার হুগলির মশাটের চণ্ডীতলায় বিজেপির সভা ছিল। এদিনের সভা থেকে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন দিলীপ ঘোষ। বিজেপি রাজ্য সভাপতি এবার মেরে হাড়গোড় ভেঙে দেওয়ার হুঙ্কার ছাড়লেন। তাঁর সাফ কথা, হাত থাকতে মুখে কেন। বিজেপির রথযাত্রায় যাঁরা বাধা হয়ে দাঁড়াবেন, তাঁদের মেরে হাড়গোড় ভেঙে দেব। এর আগে রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র সায়ন্তন বসু বলেন, রথ চালাতে প্রয়োজনে বিজেপি ডান্ডা ধরবে। মাটিতে পুতে দেবে।

এদিন বিজেপির সভায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বিজেপির জাতীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা এবং জাতীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। দুর্গাপুরের তৃণমূল বিধায়ককে আক্রমণ করতে গিয়ে হুঁশিয়ারির সুরে দিলীপ বলেন, মেরে ৬ মাস হাসপাতালে পাঠাব কেন, এখানেই দফারফা হয়ে যাক। আমরাও চাইলে পালটা মার দিতে পারি, পঞ্চায়েতের সময়ে দু-এক জায়গায় সেটা করে দেখিয়েছি। যদি মারামারি করতে চান, তাহলে হাত থাকতে মুখে কেন? বিজেপির রথযাত্রায় বাধা দিলে মেরে হাড়গোড় ভেঙে দেব।

একদিন আগে সায়ন্তন বসু বলেছিলেন, বিজেপির রথ আটকাতে পারবে না কেউ। কেউ আটকাতে এলে আমাদের দলের যুবমোর্চার কর্মীরা তাঁদের মাটিতে পুতে দেবে। রথ চালাতে বিজেপি মোর্চার কর্মীরা প্রয়োজনে ডান্ডা ধরবে। পুলিশের কাজ করবেন তাঁরাই।

এর আগে দিলীপ ঘোষ লাশ ফেলে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন। এবার তিনি বললেন, হাত থাকতে মুখে নয়। তিনি মেরে হাড়গোড় ভেঙে দেব। তাঁর উত্তেজক ভাষণের পরই ফেরার পথে বিজেপি নেতারা আক্রান্ত হন। গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। গুরুতর আহত হন জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।